ই-ক্যাবের সদস্য হলে কি লাভ?

ই-ক্যাবের সদস্য সংক্রান্ত বিস্তারিত

 ই-ক্যাবের সদস্য হওয়ার মানদন্ড ই-ক্যাবের সদস্য হওয়ার জন্য কয়েকটি বিষয় গুরুত্বপূর্ণ একটি হলো – অবশ্যই নবায়নকৃত ট্রেড লাইসেন্স ও TIN থাকতে হয় – ব্যবসাটা অনলাইনে পরিচালিত হতে হবে। – অন্যএকজন ই-ক্যাব সদস্যের রেফারেন্স প্রয়োজন হয়। – আবেদনপত্রে যাবতীয় তথ্য প্রদান করে আবেদন করতে হয়। – ব্যবসাটির ঠিকানা বাংলাদেশের অভ্যন্তরে হতে হয়|   ই-ক্যাবের সদস্য হতে

বৈদেশিক মূদ্রার লিমিট

বৈদেশিক মূদ্রার ব্যয়সীমা ও ই-কমার্স

  বিগত কয়েকবছর ধরে একটা বিষয় আলোচনা চলে আসছে যে ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানসমূহের জন্য বৈদেশিক মূদ্রার ব্যয়সীমা নির্ধারণ করে তা খরচ করতে দেয়ার সুযোগ প্রয়োজন আছে কিনা থাকলে সেটা কত?   মূলত কোন প্রতিষ্ঠান বছরে কত টাকা ফরেন কারেন্সি খরচ করে সে ব্যাপারে তথ্য জানাতে প্রতিষ্ঠানগুলো বিব্রত বোধ করছিল। তাছাড়া আর্থিক বিবরণী সংক্রান্ত তথ্য ট্রেড এসোসিয়েশনকে প্রদান

ই-ক্যাবের সদস্য হলে কি লাভ?

ই-ক্যাবের সদস্য হলে কি সুবিধা?

ই-ক্যাবের সদস্য হলে কি সুবিধা? দেশে যতরকম এর বিজনেস সেক্টর আছে সেসব সেক্টরের ট্রেডবডি বা এসোসিয়েশন আছে। কোনো পেশাদার ব্যবসায়ী নগদ লাভের জন্য এসোসিয়েশন এর সদস্য হয়না। ট্রেড লাইসেন্স যেমন ব্যবসার আইনগত স্বীকৃতি তেমনি এসোসিয়েশন এর মেম্বারশিপ এই সেক্টরে একজন উদ্যোক্তার পেশাদারিত্বের স্বীকৃতি। তবে এসোসিয়েশন এর সদস্য না হলেও ব্যবসা করতে কোনো বাঁধা নেই। কোনো

ই-ক্যাবের সদস্য ফরম

ই-ক্যাবের সদস্য ফরম পূরন করতে গিয়ে যে ধরনের ভুল করেন উদ্যোক্তারা

ই-ক্যাবের সদস্য ফরম পূরন করতে গিয়ে যে ধরনের ভুল করেন উদ্যোক্তারা বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর শুরু থেকে ই-ক্যাবের মেম্বারশিপ আবেদনসহ সম্পূর্ণ প্রক্রিয়া অনলাইনে সমন্পন্ন হয়ে থাকে। কিন্তু দেখা যায় বেশীরভাগ আবেদনকারী তাদের আবেদন প্রথমবার সম্পন্ন করতে পারেন না। অভিজ্ঞতায় দেখা গেছে তারা কিছু ভুল করে থাকেন। এধরনের ভুল অস্বাভাবিক বা অমূলক না হলেও এতে করে তাদের বেশ

e-cab members

ই-ক্যাবের সদস্য হওয়ার উপায়

  ই-ক্যাবের সদস্য হওয়া সংকান্ত্র বিভিন্ন তথ্য     বিভিন্ন সময়ে ই-ক্যাবের সদস্য হওয়ার ব্যাপারে আপনারা প্রশ্ন করে থাকেন। ই-ক্যাবের সদস্য হতে চান কিন্তু হাতের কাছে তথ্য পান না। অনেকেরই গুগলে  বা ফেসবুকে সার্চ দেয়ার অভ্যাস নেই। যদিও সার্চ দিলে এসব সব তথ্যই পাওয়া যায়। তাই আজ আপনাদের জন্য ই-ক্যাবের সদস্য হওয়া সংক্রান্ত বিভিন্ন তথ্য

মানবসেবা

করোনা পরিস্থিতিতে ই-ক্যাব ও ই-কমার্স সেক্টর

করোনা পরিস্থিতিতে ই-ক্যাব ও ই-কমার্স সেক্টর পরিস্থিতি বিবেচনায় খাদ্যসামগ্রী ও জরুরী পণ্যের পর ঈদকে সামনে রেখে পোশাক এবং রমযানের সেহেরী ও ইফতারের কথা বিবেচনা করে তৈরী খাবার অনলাইনে বিক্রি ও ডেলিভারীর অনুমতি দেয় বাণিজ্য মন্ত্রনালয়। ই-ক্যাবের আবেদনের প্রেক্ষিতে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের এই অনুমতি একদিকে জনসাধারণকে গৃহে অবস্থানে সহযোগিতা করছে অন্যদিকে দেশের ডিজিটাল অর্থনীতিতে গতি সঞ্চার ও

মানবসেবা

ই-ক্যাবের মানবসেবা ডট কম

মানবসেবা ডট কম ই-কমার্স এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ আপনাকে স্বাগত জানাচ্ছে ই-ক্যাবের manobsheba.com উদ্যোগের সাথে যুক্ত হয়ে মানুষের পাশে দাঁড়াতে। করোনা পরিস্থিতিতে গরিব ও স্বল্প আয়ের মানুষদের দৈনিন্দিন রুটি রুজি প্রায় বন্ধ হয়ে গেছে। এই স্বল্প আয়ের মানুষগুলো সবসময় বিভিন্ন দায়িত্বপালনের মাধ্যমে আমাদের প্রতিদিনের জীবনের বিভিন্ন সেবা ও পণ্যসামগ্রী সরবরাহে নিয়োজিত থাকে। দৈনিন্দিন খাবার, শিশুদের খাদ্য

ecab logo

প্রশ্নোত্তরে ই-ক্যাব মেম্বারশিপ

প্রশ্নোত্তরে ই-ক্যাব মেম্বারশিপ ই-ক্যাব মানে কি? ই-ক্যাব মানে, ই-কমার্স এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ ই-ক্যাব কি? ই-ক্যাব হলো, ই-কমার্স ব্যবসার সাথে জড়িত এমনসব লোকদের বিজনেস এসোসিয়েশন। সোজা কথায় যারা অনলাইনে ব্যবসা করে তাদের সংগঠন। ই-ক্যাবের সদস্য কারা যারা অনলাইনে ব্যবসা করে তারাই ই-ক্যাবের সদস্য হতে পারে? যারা ই-ক্যাবে রেজিস্ট্রেশন করে সদস্য সনদ সংগ্রহ করেছেন তারাই ই-ক্যাব মেম্বার।

করোনা ও ই-কমার্স

করোনায় ক্ষতিগ্রস্থ অনলাইন উদ্যোক্তাদের ক্ষয় ক্ষতি ও সহযোগিতা প্রসঙ্গে

করোনায় ক্ষতিগ্রস্থ অনলাইন উদ্যোক্তাদের ক্ষয় ক্ষতি ও সহযোগিতা প্রসঙ্গে এই সময়ে যখন করোনা সংক্রান্ত কারণে জীবন ও অর্থনীতি সংকুচিত। তখন ই-কমার্স উদ্যোক্তারা এক মারাত্বক সংকটে রয়েছে। মানুষ গৃহে অবস্থান করছে আর তাদের নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য দ্রব্য ই-কমার্স কেনার প্রবণতা বাড়লেও সার্বিক পরিস্থিতি নাজুক। কারণ যেখানে ৯২ ভাগ ই-কমার্স বিজনেস বন্ধ রয়েছে যেখানে মাত্র ৮% শতাংশ

করোনা ও ই-কমার্স

করোনা পরিস্থিতিতে পণ্য ডেলিভারীর ১০ দফা সতর্কতা

করোনার সময়ের ই-কমার্স পণ্য ডেলিভারী দেয়া জাহাঙ্গীর আলম শোভন গত ২৬ মার্চ থেকে দেশে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। বাস্তবে এটা আসলে এক  ধরনের শিথিল লকডাউন। এর মধ্যে ক্যাবিনেট ডিভিশন থেকে জরুরী পণ্য ও ঔষধ ডেলিভারী করতে পারবে। নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রবাদি ও খাদ্য পরিবহন করার অনুমতি রয়েছে। কিন্তু এ ব্যাপারে কিছু শর্ত রয়েছে। এই সময়ে