ভাট

২০২১-২২ অর্থবছরের জন্য ই-ক্যাবের বাজেট প্রস্তাবনার প্রধান বিষয়গুলো- ২

২০২১-২২ অর্থবছরের জন্য ই-ক্যাবের  বাজেট প্রস্তাবনার প্রধান বিষয়গুলো- ২ ১. ভ্যাট রেজিস্ট্রেশন এর সীমা নির্ধারণ প্রস্তাবনা: যে অনলাইন উদ্যোক্তা বার্ষিক ১ কোটি টাকার কম বিক্রি করে থাকেন। তাদের জন্য ভ্যাট অব্যাহতির প্রস্তাব করছি। যৌক্তিকতা: যেহেতু সরবরাহকারীদের ক্ষেত্রে ন্যুনতম সীমা রয়েছে। সেহেতু ক্ষুদ্র ও মাঝারী অনলাইন উদ্যোক্তাদের ক্ষেত্রে এই সুবিধা থাকা যুক্তিযুক্ত। ২. নূন্যতম করের বিধান (Minimum Tax) প্রস্তাবনা: অর্থ আইন,

ই-কমার্স ও বাংলাদেশ

ই-কমার্সে ভ্যাট ট্যাক্স: সমস্যা ও পরামর্শ

বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন সভায় ই-ক্যাব সদস্যদের পক্ষ থেকে উত্থাপিত দাবীর একাংশ ১।  যে সকল প্রতিষ্ঠান অনলাইন ভিত্তিক  (ওয়েবসাইট ভিত্তিক সেবা) সেবা প্রদান করছে  সে সকল প্রতিষ্ঠানকে অনলাইন সার্ভার পেমেন্ট, ইন্টারনেট সেবাসহ আনুষঙ্গিক খরচের উপর ভ্যাট এবং আয়কর মওকুফ করা। এখানে উল্লেখ্য যে অনলাইন সার্ভার পেমেন্ট বা ক্লাউড হোস্টিং এর পেমেন্টের বিপরীতে আয়কর বাবদ অতিরিক্ত ২০%

জাহাঙ্গীর আলম শোভন

করোনার ১ বছরে ই-কমার্স সেক্টর

করোনার ১ বছরে ই-কমার্স সেক্টর  ই-ক্যাবের সদস্য প্রতিষ্ঠান ১৫শ। তবে ২ হাজারের বেশী প্রতিষ্ঠান রয়েছে ছোট বড় মিলিয়ে। এরমধ্যে কিছু প্রচলিত ব্যবসায়ের অনলাইন শপও রয়েছে। তবে ফেসবুক ভিত্তিক প্রায় ২ লক্ষ পেইজ রয়েছে। এরমধ্যে অল্পকিছু ছাড়া বাকীগুলোকে আমরা ননফর্মাল বিজনেস বলি। কারণ তাদের অনেকের ট্রেড লাইসেন্স নেই। গতবছর পেন্ডামিকের শুরুতে দেখা গেছে যেসব নারী উদ্যোক্তা