ডিজিটাল কুরবানি হাট

ডিএনসিসির ডিজিটাল হাট: সাধারণ ক্রেতাদের জিজ্ঞাসা

ডিএনসিসির ডিজিটাল হাট: সাধারণ ক্রেতাদের জিজ্ঞাসা এবার অনলাইনে গরু কেনার ব্যাপারে অনেকে আগ্রহী হয়েছেন। আবার কারো মনে কিছু  প্রশ্ন রয়েছে। এগুলো সমাধান হলে তারা হয়তো সিদ্ধান্ত নেবেন। তাদের কথা বিবেচনা করে েএই লেখা তৈরী করা হয়েছে।   ১. কিভাবে ডিএনসিসির ডিজিটাল হাট থেকে গরু কিনবেন? উত্তর: ডিএনসিসির ডিজিটাল হাট থেকে গরু কেনার জন্য ভিজিট করুন: www.digitalhaat.net

কুরবানির মাংস রেডি করে হোম ডেলিভারী

কুরবানির মাংস প্রক্রিয়াকরণ বা স্লটারিং সেবা

  নগরবাসীর জন্য কুরবানির মাংস প্রসেসিং সেবা সাপোর্ট সেন্টার:  09614102030   করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধের অংশ হিসেবে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন আয়োজনে ই-কমার্স এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ এর ব্যবস্থাপনায় অনলাইনে নগরবাসীর জন্য ন্যায্যমূল্যে কুরবানির পশু ক্রয় ও মাংস প্রক্রিয়াকরণ সেবা নিয়ে এসেছে ডিজিটাল হাট (www.digitalhaat.net)। এতে অন্যান্য সহযোগিতায় রয়েছে আইসিটি ডিভিশন ও বাংলাদেশ ডেইরি ফার্ম এসোসিয়েশন। কোভিড

অনলাইনে কুরবানি পশু

ডিএনসিসি’র ডিজিটাল হাট: কুরবানি পশুর স্মার্ট সমাধান

ডিএনসিসি’র ডিজিটাল হাট/   মহামারী করোনা ভাইরাসের কালো থাবায় মানুষের স্বাভাবিক জীবনযাত্রায় এসেছে ব্যাপক পরিবর্তন। কেনা বেচা এবং লেনদেনের সব জায়গাতেই মানুষ ডিজিটাল লেনদেনে অভ্যস্ত হয়ে পড়েছে। দেশের অর্থনীতিকে স্বাভাবিক রাখতে সীমিত আকারে চলছে সকল অর্থনৈতিক কার্যক্রম। এই দূর্যোগের মধ্যেই দেশের মানুষ কিছুদিন আগে পালন করেছে আমাদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব ঈদ-উল-ফিতর। এবং দেখতে দেখতেই

ডিএনসিসি িডিজিটাল হাট

ডিজিটাল কোরবানি হাট সম্পর্কে সাধারণ প্রশ্ন উত্তর

প্রশ্নোত্তরে ডিজিটাল হাট ক. কোরবানির পশু পছন্দ ও ক্রয় বিক্রয় খ. কোরবানির পশু জবেহ, মাংস ও অন্যান্য অংশ ডেলিভারি ক: কোরবানির পশু পছন্দ ও ক্রয় বিক্রয় ১. কিভাবে অনলাইনে পশু ক্রয় করা যায়? উত্তর: ডিজিটাল হাটে যেসব অনলাইন শপ সংযুক্ত রয়েছে। সেসব হাট থেকে সাধারণ নিয়মে পশু পছন্দ করে অনলাইনে পেমেন্ট দিয়ে কুরবানির পশু ক্রয়

অনলাইন কুরবানি বাজার

ডিজিটাল হাটে কুরবানি গরু বিক্রয়ের গাইড লাইন

ডিজিটাল হাটে গরু বিক্রয়ের গাইড   কিছু সাধারণ তথ্য ১. ডিজিটাল হাটে গরু বিক্রয়ের জন্য আপনাকে অবশ্যই ভেরিফাইড বিক্রেতা হতে হবে। আপনাকে অবশ্যই ই-কমার্স এসোসিয়েশন এর মেম্বার হতে হবে, অথবা বাংলাদেশ ডেইরী ফার্ম এসোসিয়েশন এর মেম্বার হতে হবে অথবা অন্যকোনো অনুমোদিত কতৃপক্ষ কতৃক প্রত্যয়িত হতে হবে যেমন পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক। ২. আপনার ট্রেড লাইসেন্স ছাড়াও

ই-ক্যাবের সদস্য হলে কি লাভ?

ই-ক্যাবের সদস্য হলে কি সুবিধা?

ই-ক্যাবের সদস্য হলে কি সুবিধা? দেশে যতরকম এর বিজনেস সেক্টর আছে সেসব সেক্টরের ট্রেডবডি বা এসোসিয়েশন আছে। কোনো পেশাদার ব্যবসায়ী নগদ লাভের জন্য এসোসিয়েশন এর সদস্য হয়না। ট্রেড লাইসেন্স যেমন ব্যবসার আইনগত স্বীকৃতি তেমনি এসোসিয়েশন এর মেম্বারশিপ এই সেক্টরে একজন উদ্যোক্তার পেশাদারিত্বের স্বীকৃতি। তবে এসোসিয়েশন এর সদস্য না হলেও ব্যবসা করতে কোনো বাঁধা নেই। কোনো

ই-ক্যাবের সদস্য ফরম

ই-ক্যাবের সদস্য ফরম পূরন করতে গিয়ে যে ধরনের ভুল করেন উদ্যোক্তারা

ই-ক্যাবের সদস্য ফরম পূরন করতে গিয়ে যে ধরনের ভুল করেন উদ্যোক্তারা বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর শুরু থেকে ই-ক্যাবের মেম্বারশিপ আবেদনসহ সম্পূর্ণ প্রক্রিয়া অনলাইনে সমন্পন্ন হয়ে থাকে। কিন্তু দেখা যায় বেশীরভাগ আবেদনকারী তাদের আবেদন প্রথমবার সম্পন্ন করতে পারেন না। অভিজ্ঞতায় দেখা গেছে তারা কিছু ভুল করে থাকেন। এধরনের ভুল অস্বাভাবিক বা অমূলক না হলেও এতে করে তাদের বেশ

e-cab members

ই-ক্যাবের সদস্য হওয়ার উপায়

  ই-ক্যাবের সদস্য হওয়া সংকান্ত্র বিভিন্ন তথ্য     বিভিন্ন সময়ে ই-ক্যাবের সদস্য হওয়ার ব্যাপারে আপনারা প্রশ্ন করে থাকেন। ই-ক্যাবের সদস্য হতে চান কিন্তু হাতের কাছে তথ্য পান না। অনেকেরই গুগলে  বা ফেসবুকে সার্চ দেয়ার অভ্যাস নেই। যদিও সার্চ দিলে এসব সব তথ্যই পাওয়া যায়। তাই আজ আপনাদের জন্য ই-ক্যাবের সদস্য হওয়া সংক্রান্ত বিভিন্ন তথ্য

মানবসেবা

করোনা পরিস্থিতিতে ই-ক্যাব ও ই-কমার্স সেক্টর

করোনা পরিস্থিতিতে ই-ক্যাব ও ই-কমার্স সেক্টর পরিস্থিতি বিবেচনায় খাদ্যসামগ্রী ও জরুরী পণ্যের পর ঈদকে সামনে রেখে পোশাক এবং রমযানের সেহেরী ও ইফতারের কথা বিবেচনা করে তৈরী খাবার অনলাইনে বিক্রি ও ডেলিভারীর অনুমতি দেয় বাণিজ্য মন্ত্রনালয়। ই-ক্যাবের আবেদনের প্রেক্ষিতে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের এই অনুমতি একদিকে জনসাধারণকে গৃহে অবস্থানে সহযোগিতা করছে অন্যদিকে দেশের ডিজিটাল অর্থনীতিতে গতি সঞ্চার ও

মানবসেবা

ই-ক্যাবের মানবসেবা ডট কম

মানবসেবা ডট কম ই-কমার্স এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ আপনাকে স্বাগত জানাচ্ছে ই-ক্যাবের manobsheba.com উদ্যোগের সাথে যুক্ত হয়ে মানুষের পাশে দাঁড়াতে। করোনা পরিস্থিতিতে গরিব ও স্বল্প আয়ের মানুষদের দৈনিন্দিন রুটি রুজি প্রায় বন্ধ হয়ে গেছে। এই স্বল্প আয়ের মানুষগুলো সবসময় বিভিন্ন দায়িত্বপালনের মাধ্যমে আমাদের প্রতিদিনের জীবনের বিভিন্ন সেবা ও পণ্যসামগ্রী সরবরাহে নিয়োজিত থাকে। দৈনিন্দিন খাবার, শিশুদের খাদ্য