ফেসবুকে বিজনেস পেজ ওপেন করবেন কিভাবে?
জাহাঙ্গীর আলম শোভন

????????????????????????????????????????????????????????????????

আমরা ফেইসবুকে পার্সোনাল প্রোফাইল ওপেন করে থাকি। সেখানেই অনেকে পন্য বেচাকেনা শুরু করেন। আবার অনেকে বিজনেস পেজ থাকা সত্বেও তাই করেন। এর কোনাটাই ঠিক নয়। আপনি পার্রসোনাল পেইজে বিজনেস ্েপইজের লিংক দিতে পারেন। আবার অনেকে করেন কি? বিজসেন পেইজ খুলেন কিন্তু অপশণগুলো ঠিকমতো চুজ করতে করেন না। ফলে কারো কারো shop now অপশন আসেনা। আবার অনেকে shop now চাননা কিন্তু সেটা এসে পড়ে। বিষয়টা একেবারে প্রাথমিক তবুও আজের পোস্টটা দিলাম এ বিষয়ে।
ফেসবুকের সার্চ অপশনে Create Page লিখে সার্চ দিলে কমলা পতাকার আইকনযুক্ত যে Create Page বারটি আসবে।অথবা Use Facebook as এ ডাউন এরো চিহ্নিত অপশনে ক্লিক করলে Create Page লেখা আসবে। তাতে ক্লিক করলে পেউজ খোলার জন্য নির্ধারিত পেউজে চলে যাবেন আপনি। সেখানে বিভিন্ন ধরনের অপশন রয়েছে।। অন্যকোন বিজনেস পেইজ ভিজিট করলে দেখবেন সেকানে Create Page অপশনটি শো করে। সেখান থেকেও আপনি আপনার পেইজ ওপেন করা শুরু করতে পারেন।
Local Business or Place, Company Organization or Institution, Brand or Product, Artist brand or Public Figure, Entertainment ges Cause or Community এই অপশনগুলো আসবে।
আপনি যদি ফেইসবুকে একটি বিজসেস পেইজ খোলার জন্য মনিস্থির করেন- Local Business or Place অপশনটিতে ক্লিক করলে একটি বক্স আসবে যেখানে Choose a category থেকে নিজের ব্যবসায়িক ধরন বুঝে একটি ক্যাটাগরি সিলেক্ট করুন।
এরপর Business or Place Name এর জায়গায় ব্যবসাটি যে নামে পরিচিত হবে তা লিখতে হবে।
এরপর Street Address, City/State, Zip Code ও Phone বক্সগুলোতে প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে get Started বাটনটিতে ক্লিক করতে হবে। তারপর আসবে সেট আপ উইন্ডো।
এরপর About AsGk Category বক্সে ব্যবসাটির সুনির্দিষ্ট ধরণ, Tell people what your Page is about বক্সে নিজের ব্যবসার বর্ণনা ও এই পেজ ওপেন করার কারণ, ওয়েবসাইট বক্সে ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইট থাকলে সেই ওয়েব অ্যাড্রেস এবং পেজ অ্যাড্রেস বক্সে পেজের জন্য কাঙ্ক্ষিত অ্যাড্রেস লিখতে হবে।
Profile Picture অংশে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের লোগো প্রোফাইল পিকচার হিসেবে আপলোড করুন।
Add to Favourites অংশে পেজ ওপেনকারী পেজের তথ্য কী কী উপায়ে পেতে চান তা ঠিক করে দেবেন। Preferred Page Audience অংশে ব্যবসার ভৌগোলিক অবস্থান, কোনো বয়সসীমা ও লিঙ্গের মানুষ এই পেজ দেখতে পাবেন এবং ইন্টারেস্ট নির্ধারণ করে দিতে হবে।
সব শেষে save বাটনে ক্লিক করলে পেজটি সেভড হবে। কিন্তু পেইজ খুললে তো হবেনা। আপনাকে পেইজ রিচ বাড়াতে হবে জনপ্রিয় করতে হবে।বন্ধুদের ইনভাইট করতে হবে। পেইজ খোলার সাথে সাথে ইনভাইট ফ্রেন্ডস আসবে তখন আপনি তাদেরকে ইনভাইট করতে পারেন। লাইক দেযার জন্য্য। আছে লাইক বাড়ানোর জন্য পেইজবুকের বুস্ট পোস্ট অপশন। সেটাও ব্যবহার করতে পারেন। লাইক ২৫টি হলে সব তথ্যভালোভোবে দেখে আপডেট করে দিন। ১০০ লাইক হলে আর অবহেলা করবেন না। নিয়মিত পোস্ট দেয়ার চেস্টা করুন। ‍নিয়মিত মানে প্রতিদিন নয়। আপনার ব্যবসা ও পন্যের ধরন অনুসারে ঞযতো সপ্তাহে ১দিন দিলেও চলবে বা দিনে ৩ বার লাগতে পারে।

এ বিষয়ে কয়েকটি সাধারণ পরামর্শ
১. অবাঞ্চিত বা বিনা প্রয়োজনীয় কিছু দেবেন না।
২. ধর্মীয় সাম্প্রদায়িক রাজনৈতিক বিশেষ কোনো আদর্শশের প্রতি ইঙ্গিতবহ কিছু পোস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।
৩. হয়তো আপনি ভবিষ্যেতে পন্য্য বিক্রি করবেন। এখন পেউজ খুলেছেন। সেক্ষেত্রে আপনি ভবিষ্যতে যা সেল করবেন। সে ভ্যাপারে বিভিন্ন তথ্য ও ছবি শেয়ার করেতে পারেন। নিতে পারেন মতামতও।
৪. যাই পোস্ট করেন । নির্র্ভূল করুন। ইনফরমেটিভ কিছু হলে সূত্র শেয়ার করুন।
৫. ছবি ব্যবহার করলে কোয়ালিটির দিকে খেয়াল রাখুন। ছবির সূত্র উল্লেখ করুন। নিজস্ব ছবি হলে তা লিখুন। কোনো ফটোগ্রাফারের সাহায্য নিলে তাকে ফটো ক্রেডিট দিন। ডিজাইনার হলে তার কাজের স্বীকৃতি দিন।
৬. খুব বেশী বড় পোস্ট দেয়ার প্রয়োজন নেই। বড়ো পোস্ট ফেইসবুকে মানুষ পড়তে চায়না।
৭. শুরুতেই পন্য বেচাটো জরুরী নয়। আপনার পেইজ রিচ ২/৪ হাজার হলে পন্য বেচা শুরু করুন।
৮. তবে পেশাদারী ব্যবসায়ী হতে চাইলে ফেইসবুকের পাশাপাশি ওয়েবসাইট খুলুন।
৯. shop now বাটন একটিভ করার জন্য ওয়েবসাইট দরকারী বিষয়।
১০. শুধু ফেইসবুকে বিজনেস ফেইস খুলতে পারলেই বেচাকেনা শুরু করবেন না। ব্যবসা একটি শেখার ব্যাপার ব্যবসা বানিজ্য, লাভ লোকসান, পন্য ক্রয় বিক্রয়, সঙগ্রহ, ডেলিভারী, প্যাকিং, পেমেন্ট এসব জেনে ব্যবসা শুরু করুন।
ধন্যবাদ।

12,264 total views, 2 views today

Comments

comments

Your email address will not be published.