কিভাবে সাইটের জন্য একটি উপযোগী ডোমেইন নাম নির্বাচন করবেন

1565

যখন আমরা কোন  ডোমেইন নাম নির্বাচন করতে যাই তখন আমাদের  মনে একটা প্রশ্ন জাগে  যে কোন ডোমেইনটা পছন্দ করা উচিৎ হবে।  এই পোস্টটা এই   বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে ।  পোস্টটি  পড়ার পর আপনি নিজেই দক্ষ হয়ে যাবেন    ডোমেইন নির্বাচন করার ব্যাপারে । 😀

কিভাবে সাইটের জন্য একটি  উপযোগী ডোমেইন নাম নির্বাচন করবেন 

ছোট এবং সহজে যাতে মনে রাখা যায়ঃ 

যখন কোন ডোমেইন নাম পছন্দ করতে যাবেন , খেয়াল রাখতে হবে ডোমেইন নামটা ছোট এবং যাতে সহজে মনে রাখা যায় । কারন বড় ডোমেইন ব্যবহার করলে ইউ আর এল বড় হয়ে যায় , এতে অসুবিধা হয়। ডোমেইন টাইপ করতে যেয়ে বানানে ভুল বা টাইপিং এ ভুল হতে পারে । এটি মনে রাখাও সোজা না । আবার ভুল ডোমেইন লিখে সার্চ দিলে অন্য সাইটে ভুলে চলে যেতে পারে । গুগল ছোট ইউ আর এল গুলোকে প্রাধান্য দেয় রাঙ্কিং এর জন্য ।

কোন অকথিত বা ভুল বানান ব্যবহার করা উচিত না । যেমন ” you এর পরিবর্তে u” , “express এর পরিবর্তে xpress” . ভিজিটরদের কষ্ট হতে পারে আপনার সাইট খুঁজে পেতে ।

কি ওয়ার্ড ব্যাবহার করাঃ

ডোমেইনে কি ওয়ার্ড ব্যবহার করা এটাও একটা ভাল আইডিয়া । কিন্তু গুগল নতুন আপডেট অনুযায়ী ,র‍্যাঙ্কিং এর ফ্যাক্টর না । কিন্তু এটি ভিজিটরকে বুঝতে সাহায্য করে যে সাইটটা কোন তপিক্স সম্বন্ধে । যেমন , cricinfo.com । espn এর এই ডোমেইন নেইম দেখে বুঝা যায় , সাইটটি ক্রিকেট সম্পর্কিত টপিকস নিয়ে সাজানো । এইখানে এইখানে ” cricinfo” এর মধ্যে cric এর অর্থ হচ্ছে “cricket” এবং info এর অর্থ হচ্ছে information ।

এইখানে ডোমেইন যিনি সিলেকশন করেছেন তিনি কিছুটা সৃজনশীলতার পরিচয় দিয়েছেন । তিনি শব্দটাকে কিছুটা সংক্ষেপ করে পরিবর্তন করে  সুন্দর একটা কম্বিনেশন করেছেন । এই ধরণের ডোমেইনকে বলা হয় পারশিয়াল ম্যাচ ডোমেইন ( partial match domain) । এই ধরণের ডোমেইনে আপনার ফোকাস কিওয়ার্ড রাখা হয় যাতে সাইটটা কি সম্বন্ধে মানুষ সেটা বুঝতে পারে সাইটটা ।

শুধুমাত্র abbreviation বা শব্দ সংক্ষেপ নির্ভর ডোমেইন নির্বাচন করা ভালো না । কারন এইটা দেখতে খারাপ আর মানুষ ভুলে যেতে পারে ।

Exact match domain :

নতুন গুগল আপডেট অনুযায়ী Emd এর কোন value নেই ranking এর জন্য । কিন্তু এটি লং টেইল কি ওয়ার্ড , এবং কম প্রতিযোগিতাপূর্ণ কি ওয়ার্ডে কাজ করে । ইভেন্ট ব্লগিং , অথবা শুধু এটি টপিকস রিলেটেড সাইটের জন্য এটি apply করতে পারেন । অন্যথায় আপনার সাইট পেনাল্টি খেতে পারে ।  যেমনঃ SearchEnglish.com , এইখানে ইংরেজি বিষয়ক আর্টিকেল থাকতে পারে ।

 

ব্র্যান্ডিং এর জন্যঃ আপনার যদি কোম্পানিকে ব্র্যান্ডিং করার ইচ্ছা থাকে , সেটাও ভালো একটি tricks. ভিজিটররা সরাসরি কি ওয়ার্ড এ সার্চ করে ডাইরেক্ট আপনার সাইটে চলে যাবে । কিন্তু মানুষের কাছে পরিচিত করার জন্য আপনাকে প্রমোশন বা বিজ্ঞাপন দিতে হবে । যেমনঃ Nike , Xerox ,Reddit .

আপনি দুইটি শব্দকে কম্বিনেশন করে আপনার কনটেন্টের  ঠিক বিপরীত  অর্থ  বহন করে এমন শব্দ পছন্দ করতে পারেন । ভিজিটরদের  আকর্ষণ এবং আগ্রহ বাড়ানোর জন্য এই ধরণের  কৌশল  প্রয়োগ করা হয় । যেমন , facebook.com -আরে !!! কিভাবে বইয়ের সাথে ফেসিয়াল সম্পর্কিত , অথবা মনে হতে পারে সাইটটা বই বা ই বই সম্বন্ধে । কিন্তু এটি পুরো বিপরীত । এটি হচ্ছে টুইটারের মতন সামাজিক নেট-ওয়ার্কিং সাইট । আরেকটা হচ্ছে , MediaFire.com – Media শব্দটার সাথে আমরা সবাই পরিচিত । কিন্তু এখানে ভিজিটর মনে প্রশ্ন জাগতেই পারে , একটা মিডিয়াকে কিভাবে আগুন দিয়ে উড়ানো যায় ? !! 😀 কিন্তু এটি ফাইল শেয়ারিং সাইট 😀

 

আপনার ব্র্যান্ডকে রক্ষা করুনঃ যখন আপনি কোন আপনার ফিক্সড কি ওয়ার্ড সিলেক্ট করবেন , যেমন , womenshoes.com এই ধরণের সাইটে আপনাকে নারীদের জুতো সম্পর্কিত কন্টেন্ট রাখতে হবে । আর এখন যদি এইখানে নারীদের জায়গায় পুরুষদের জুতোর কন্টেন্ট নিয়ে আসেন তাহলে ভিজিটররা সেটা ভালো ভাবে নাও নিতে পারে । এখন আপনার যদি এই ধরনের পুরুষ , নারী উভয়ের জুতো রাখতে চান তাহলে সেই ধরণের ডোমেইন নাম সিলেক্ট করা উচিত যাতে নির্দিষ্ট কারও এর না হয়ে পুরুষ , নারী উভয় পক্ষের সাথে নামটা বানায় , যেমন shiningshoes.com .

যখন একটা সাইট জনপ্রিয় হয়ে যায় তখন একই সাইটের নাম দিয়ে বিভিন্ন ধরণের এক্সটেনশন দিয়ে সাইট খোলা হয় । যেমন , আপনার সাইট ধরুন abc.com , আরেকজন abc.net খুলে বসে থাকতে পারে । এখন যদি ভিজিটর ভুল করে com এর জাইগায় net লিখে অন্য সাইটে চলে যা তাহলে কিন্তু আপনি অনেক ভিজিটর হারাবেন । কারন আপনি জানেন ট্রাফিক= ভিজিটর ।
শুতরাং এটি যাতে না হয় , তার জন্য রিলেটেড ডোমেইন এক্সটেনশন বা ডোমেইন লিখতে কি কি ভুলহতে পারে তা  রেজিস্টার করে রাখতে পারেন এবং পরে মেইন ডোমেইনে রি-ডাইরেক্ট করে রাখতে পারেন ।

নাম্বার এবং হাইফেনঃ

নাম্বার মিক্সড বা হাইফেন সহ ডোমেইন নেয়া ভালো না । কারন এটি ব্যাবহার করতে ঝামেলা হয় । যদি আপনার ডোমেইন দুইটা শব্দ নিয়ে হয় এবং আপনি চাচ্ছেন শব্দ গুলা আলাদা করে বুঝানোর জন্য তাহলে হাইফেন দিতে পারেন । কিন্তু একটার বেশি হাইফেন স্পাম হিসেবে গণনা করা হয়

যদি নাম্বার হিসেবে কোন ডোমেইন নির্বাচন করতে চান তাহলে সেতি যাতে অর্থবোধক হয় তার দিকে খেয়াল রাখা উচিত। যেমন ২৪, ৬ , ৩৬৫ । এই ধরণের ডোমেইন দেখা যায় বেশি নিউজপেপার গুলাতে। যেমন bdnews24.com । আপনি অন্য সাইট গুলোতে এই ধরণের সংখ্যা ব্যবহার করতে পারেন । কিন্তু সেটা যাতে অর্থ-বোধক হয় ,এবং সেই ধরণের কন্টেন্ট সাইটে যাতে থাকে । নাম্বার বেইজড ডোমেইন মাঝে মাঝে গুগল স্পাম হিসেবে গণনা করে ।

ডোমেইন এক্সটেনশনঃ

যদি আপনি কোন সাইট দীর্ঘ দিনের জন্য চালাতে চান এবং আপনি জানেন না কোন ধরণের কন্টেন্ট রাখা উচিত তাহলে ডট কম (. com) ব্যাবহার করাটাই উত্তম । আর আপনি যদি ভিজিটরের ধরন সম্বন্ধে নিশ্চিত থাকেন তাহলে আলাদা এক্সটেনশন ব্যবহার করতে পারেন ।

.co : কোম্পানি , বাণিজ্য , কমিউনিটি এর জন্য সংক্ষেপণ রুপ
.info : তথ্য পূর্ণ সাইটের জন্য
.net : টেকনিক্যাল , ইন্টারনেট গঠন বা এর সম্পর্কিত সাইটের জন্য
.org : বিনা বাণিজ্যিক সংগঠনের জন্য
.biz : ব্যাবসায়ী বা বাণিজ্যিক সাইটের জন্য । যেমন ই কমার্স ।
.me : ব্লগ , পোর্টফলিও বা পার্সোনাল সাইটের জন্য ।

আরও অনেক এক্সটেনশন আছে , এইগুলা বহুল ব্যবহৃত এক্সটেনশন ।

কোন দেশকে টার্গেট করাঃ

যদি আপনার ব্যবসা লোকাল হয় তাহলে দেশকে টার্গেট করা ভালো । কারন আপনার সাইট রিলেটেড প্রোডাক্ট গুলো গুগলের country based সাব ডোমেইন গুলোতে ranking এ আগে রাখে । ধরুন , আপনার টার্গেটড দেশ যদি বাংলাদেশ হয় তাহলে abc.com.bd অথবা ভারত হলে abc.in , এইভাবে ডোমেইন নিতে পারেন ।

বাতিলকৃত ডোমেইনঃ

যখন আপনি কোন নতুন সাইট রেজিস্টার করবেন , তখন কোন ডোমেইন অথোরিটি থাকে না, তাই পোস্ট রাঙ্কিং করাতে কঠিন হয় । এক্সপায়ারড বা বাতিলকৃত ডোমেইন গুলোর অথোরিটি বেশি থাকে । তাই সহজে রাঙ্কিং করাটা অনেক সোজা হয়ে যায় । এই সব সাইট থেকে বাতিককৃত ডোমেইন গুলো নিতে পারেন ।

ExpiredDomains.net  , Auction GoDaddy

শুধু আপনার কি ওয়ার্ড টা সার্চ বক্সে লিখে সার্চ দিলেই অনেক এই ধরণের ডোমেইন পাবেন । কিন্তু এই ধরণের ডোমেইন কিনতে হলে আপনাকে বাজেট রাখতে হবে কারন এক্সপায়ারড ডোমেইনের দাম এক্তু বেশি থাকে
সাধারণতঃ ইভেন্ট ব্লগিং বা affilate মারকেটিং সাইট গুলোতে এইগুলো বেশি ব্যবহার করা হয় ।

স্পাম স্কোর পরীক্ষাঃ
যখন আপনি কোন ডোমেইন নির্বাচন করবেন বিশেষ করে স্পাম স্কোর পরীক্ষা করা উচিত । নাহলে আপনার সাইট সার্চ ইঞ্জিন থেকে পেনাল্টি খেতে পারে ।কারন এখন সার্চ ইঞ্জিন গুলো বেশি স্মার্ট । 😀

অনেক ধরণের সাইট আছে , তার মধ্যে moz এ স্পাম চেক করতে পছন্দ করি ।

Screenshot_10

ব্যাকলিঙ্কঃ

যখন কোন বাতিলকৃত ডোমেইন নিতে যাবেন তখন খেয়াল রখাবেন যে নিশ বা কিওয়ার্ড রিলেটেড ব্যকলিঙ্ক যাতে থাকে । যদি না থাকে তাহলে আর সামনে না আগানোই ভালো হবে । সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয় ব্যাকলিঙ্ক চেক করার টুলস গুলো হচ্ছে ।

1. OpenSiteExplorer
2.aherfs
3. Semrush

কিছু বহুল ব্যবহৃত সাইট যেখান থেকে আপনি ডোমেইন সাজেশনের জন্য ব্যবহার করতে পারেন ।

1.Dyna Dot

2.Name Mesh

3. Bust A name

4. Domainr

5. Domize

6. Panabee

7. Nameboy
ডোমেইন কিনার আগে দুই তিনটা সাইট থেকে পরীক্ষা করা উচিৎ যে আগে কেউ কিনেছে কিনা বা ব্যবহার করছে কিনা ।

Whois.net

Who.is

এখন আপনার পালা। পোস্টটি পড়ার পর  আমি নিশ্চিত যে ডোমেইন নির্বাচন করতে   এখন কোন অসুবিধা হবে না । ফিলিং Boss  😀

 

আজ এই পর্যন্ত ।  ভালো লাগছে আবার ই ক্যাব ব্লগে লিখতে পেরে । সে জন্য   ধন্যবাদ রাজিব ভাইকে  । আর এই লেখাটি লিখতে  আমাকে অনেকে সাহায্য করেছে । তাদেরকে আমার পক্ষ থেকে আন্তরিক ধন্যবাদ ।    ভালো থাকুন সবাই । বিদায় ।

ইকমার্সের  জন্য তো ইক্যাব গ্রুপ আছেই , সাথে

ইংরেজির চর্চার জন্য এই গ্রুপে আপডেট থাকতে পারেন –  Search English

যে কোন নিউজ আপডেট থাকতে এই গ্রুপে যোগ দিতে পারেন –  Business Ecommerce Content Association In Bangladesh (BECAB) 

Business Ecommerce Content Association In Bangladesh (BECAB)  এর লেখা আরও আর্টিকেল পড়তে এই লিঙ্কে ক্লিক করতে পারেন ।

পার্থ প্রতীম মজুমদার : http://blog.e-cab.net/author/partho/

গ্রুপে –  Bangla Don

মেইন সাইটঃ BanglaDon.com

Comments

comments

About The Author



Hi , My name is Partho Pratim Mazumder . I am passionate of blogging ,Writing , Seo Analyst . Tech, E-commerce are favorite topics . I am passionate in literature too .Glad to be connect : https://web.facebook.com/parthopratimmazumder

No Comments

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *