সঠিক ক্রেতাদের সাথে সঠিক সম্পর্ক তৈরী করা

575
201506251435201162890

সঠিক ক্রেতাদের সাথে সঠিক সম্পর্ক তৈরী করা

Building Right Relationship with Right Customers

জাহাঙ্গীর আলম শোভন

আপনার কাছ থেকে যেসব ভোক্তা পন্য বা সেবা ক্রয় করে থাকে তাদের প্রকৃতি বা ধরণ একরকম নয়। ক্রেতাদের আরচরণ ও ক্রেতাদের সাথে সেবা বা সেবাদাতার সম্পর্কের উপর ভিত্তি করে ক্রেতাশ্রেনীকে কয়েকভাগে ভাগ করা যায়। এবং এদের প্রত্যেকের জন্য আলাদা করে বাজাজাতকরণের কৌশল ঠিক করতে হয়। কোনো কোনোক্ষেত্রে কোনো কোনো ক্রেতাদলকে গুরুত্ব দিয়ে অফার ডিজাইন করতে হয় আবার কোনো কোনো ক্রেতাদলকে বাদ দিয়েই ভাবতে হয়। আসুন একটা একাডেমিক ডিসকার্শনে আমরা বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করি।

ক) আগুন্তুক (Strangers)

এরা অনিয়মিত ক্রেতা। কোম্পানীর প্রতি এদের আন্তরিকতা কম থাকে। এবং কোম্পানীর অফার এবং প্রয়োজনের সাথেও তাদের দূরত্ব থাকে। এরা দৈবাতই ক্রেতা হয়ে যায়। তাই এদের কথা মাথায় রেখে বিনিয়োগ করা হয়না। আমরা অনেক সময় এরকম এক দুইজন ক্রেতাও তাদের আবেগকে প্রশ্রয় দিয়ে মুল ক্রেতাদলকে আড়াল করে ফেলতে পারি। এজন্য বিষয়টি মনে রাখা উচিত। তারা যতই সাজেশান আর সমালোচনা করুক তারা কিন্তু আমার পন্যের মূল ক্রেতা নয়।

খ) প্রজাপতি (Butterflies)

এধরনের ক্রেতাদের জন্য উপযু্ক্ত অফার ডিজাইন করা হলে এদের কাছ থেকে মুনাফা অর্জন করা যায় কিন্তু এরা কোম্পানীর প্রতি আস্থা রাখেনা। এরা যেখানে ভালো সুবিধা পায় প্রজাপতির মতো সেখানেই গিয়ে ভীড় জমায়। অল্প সময়ের জন্য এরা ক্রেতা হয়। তাই এদের কথা মাথায় রেখে কোনো বিনিয়োগ করা যায়না। তবে বিশেষ অকেশনে বা স্টক জমে গেলে ইয়ার এন্ডিং সেল এর সময় এ ধরনের ক্রেতাদের কথা মাথায় রেখে ছাড় বা বিশেষ কোনো উপহার অফার করতে হয়।

 

গ) প্রকৃত বন্ধু (True friends)  এধরনের ক্রেতারা নিয়মিত ও কোম্পানীর প্রতি অনুগত হয়ে থাকেন। এরা মুনাফাযোগ্য বটে। তাই কোম্পানীর অফার এবং এদের প্রয়োজন এই দুটোর মধ্যে সবচে বেশী মিল থাকে বা থাকতে হয়। এদের অনুপ্রাণীত করা, আস্থা ধরে রাখা এবং সম্পর্ক উন্নয়ন করার জন্য চেষ্টা চালাতে হয়। তাদের কথা মাথায় রেখে বিনিয়োগ করতে হয়, পন্য ডিজাইন করতে হয় এবং অফার সাজাতে হয়। এ ধরনের ক্রেতাদেরকে প্রকৃত বন্ধু বা বিশ্বাসী বানানো গেলে এরা আপনার পন্য বা সেবার সুনাম আরেকজনের নিকট তুলে ধরবে।

ঘ) অল্প সম্পৃক্ত (Barnacles)

এধরনের ক্রেতারা যখন ক্রয় করে তখন খোশ থাকলেও এরা নিয়মিত হয়না। ফলে এরা প্রকৃত অর্থে লাভজনক হয়না। তাই তাদের রুচি ও পছন্দের কথামত বিনিয়োগ করা বুদ্ধিমানের কাজ নয়। কৌশলগত কারণ, পন্যবিশেষ বা কোনো সময়ে এদের লাভজনক ক্রেতায় রুপা্ন্তর করা যেতে পারে। তবে এদের সাথে দীর্ঘমেয়াদী সম্পর্ক হয়না বললেই চলে।

 

সঠিক ক্রেতার সাথে সঠিক পন্য সমপর্ক তৈরী করে পন্যের বিক্রয় বৃদ্ধি ও লাভজনক উপায় বের করার জন্য সম্পর্কভিত্তিক ব্যবস্থাপনা নিয়ে কাজ করতে হয়। ক্রেতাদের সাথে সম্পর্ক তৈরী এবং তার ভিত্তিতে ক্রেতা সম্পর্ক উন্নয়ন। আর সে লক্ষ্যে বিনিয়োগ ও সেবাসমূহের  ভোগ্যপ্রকৃতি এবং পরিবেশনযোগ্য উপায়ে তা বাজারে পেশ করা হয়।

 

তথ্যসূত্র

  1. Principal of Markrting: Philip Kortler nad gray Armstrong, Prentic Hall, 3rd Edition, 2010
  2. প্রিন্সিপাল অব মার্কেটিং, দ্বাদশ সংস্করণ, মে ২০১৪, খন্দকার মাসুদুজ্জামান, আবীদ পাবলিকেশন্স, ঢাকা,
  3. Busness Marketing: FR Dwyer and JF Tanner, Mc Graw, 2nd Edition 2001

 

A Content By Jahangir Alam Shovon

Comments

comments

About The Author



Freelance Consultant, Writer and speaker . Jahangir Alam Shovon has been in Bangladeshi Business sector as a consultant, He has written near about 500 articles on e-commerce, tourism, folklore, social and economical development. He has finished his journey on foot from tetulia to teknaf in 46 days. Mr Shovon is social activist and trainer.

No Comments

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *