রাইড শেয়ারিং সেবার জন্য করোনাকালীন নির্দেশিকা

রাইড শেয়ারিং সেবার জন্য করোনাকালীন নির্দেশিকা

 

 

রাইড শেয়ারিং সার্ভিসকে রোগজীবানূ থেকে নিরাপদ রাখতে নিন্মলিখিত স্বাস্থবিধি মেনে চলা উচিৎ

রাইড শেয়ার এ্যাপ অথরিটির করনীয়

১. সকল রাইডারকে স্বাস্থ্য নিরাপত্তা বিধি, টেকনিক্যাল ও বেস্ট প্রাকটিস গাইডলাইন এবং সামাজিক দূরত্ব বিষয়ে প্রশিক্ষণ ও দেয়া হবে।

২. নিরাপত্তা বিধি সংক্রান্ত নির্দেশনা এ্যাপে সংযুক্ত করা হবে। প্রতিদিন নিরাপত্তা স্টেপগুলো মেনে চালক সেবা চালু করবেন।

৩. নিরাপত্তা বিধি মানা সংক্রান্ত যেকোনো অভিযোগে এ্যাপেই যাত্রীগণ পেশ করতে পারবেন। যাত্রীদের অভিযোগ অনুযায়ী চালকের  বিপক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

৪. স্বাস্থ্য নিরাপত্তা বিষয়ক নিরাপত্তা কীট প্রদান করা হবে অথবা ব্যবহারের নির্দেশনা দেয়া হবে।

৫. ঝুঁকি কমাতে নগদ অর্থে লেনদেন নিরুৎসাহিত করতে অনলাইনে পেমেন্টের ব্যাপারে উৎসাহিত করা হবে।

 

রাইডারদের নিরাপত্তায় পালনীয় বিধি

১. স্বাস্থ্যবিধির প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ প্রদান করা হবে। মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

২. প্রতিদিন এ্যাপ ভিত্তিক রিপোটিং এর মাধ্যমে স্বাস্থ্য নিরাপত্তার বিষয়টি নিশ্চিত করা হবে।

৩. কোনো যাত্রী মাস্ক পরা না থাকলে তার রিকোয়েস্ট ক্যানসেল করার স্বাধীনতা চালকের থাকবে।

 

 

রাইড বা পরিবহনের ক্ষেত্রে পালনীয় সর্তকতা

১. প্রতিদিন বাহনকে স্যাভলন দিয়ে ধৌত করা এবং স্যানিটাইজ করার নির্দেশনা দেয়া থাকবে একই ব্যবস্থা বাইকের হেলমেট এর জন্য প্রযোজ্য হবে।

২. গাড়ীগুলো পার্ক করার সময় নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখা হবে। গাড়ীতে বসার সময় যাত্রী ও ড্রাইভার যথাসম্ভব সতর্ক থাকবে।

 

যাত্রীদের নিরাপত্তায় পালনীয় নির্দেশনা

১. যাত্রীগণ অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার করবেন।

২. গাড়ীতে উঠার আগে এবং নামার সময় ড্রাইভারের কাছে সংরক্ষিত স্যানিটাইজার বা সাবানের পানি দিয়ে হাত ধুয়ে নেবেন।

৩. এ্যাপের মাধ্যমে সেবাগ্রহীতাও তার নিরাপত্তার জন্য সংযুক্ত বিধিসমূহ চালক মেনে চলছে কিনা তা রিপোটিং করতে পারবে। চালকের গৃহিত নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রাহকের জন্য সন্তোষজনক না হলে তিনি এ ব্যাপারে রিভিউ বা অভিযোগ করতে পারবেন এবং সেবা গ্রহণ থেকে বিরত থাকতে পারবেন মানে তিনি তার রিকোয়েস্টটি ক্যানসেল করার ক্ষমতাও রাখেন।

বাংলাদেশে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি দূর না হওয়া পর্যন্ত এ্যাপভিত্তিক বাইক রাইডিং ও পণ্য ডেলিভারী সেবার ক্ষেত্রে এসব বিধি মেনে চলতে হবে। এসব বিধি মেনে চলার ক্ষেত্রে দায়িত্বহীনতার অভিযোগ প্রমাণিত হলে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের সেবা সাময়িকভাবে বন্ধ করে দেয়া হতে পারে।

ই-কমার্স এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ দেশের বিভিন্ন রাইড শেয়ার সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানের সাথে আলোচনা ও তাদের প্রস্তাবনার সাথে সমন্বয় করে এই এসওপি তৈরী করেছে। উক্ত অনুমতি শুধুমাত্র সেইসব কোম্পানীর জন্য প্রযোজ্য যারা ই-ক্যাবের সদস্য এবং উক্ত এসওপি প্রতিপালন করবেন বলে লিখিত পত্র ই-ক্যাবে প্রেরণ করেছেন।

রচনা: জাহাঙ্গীর আলম শোভন

172 total views, 2 views today

Comments

comments