ফেসবুকের যেসব সাধারন বিষয়গুলো ব্যাবসায় বৃদ্ধিতে জানা দরকার

586
facebook basics

আনোয়ার হোসেন ।

ফেসবুকে মোটামুটি সব ধরনের ব্যাবহারকারীদের দেখা পাওয়া যাবে। তাদের সংখ্যা যেমনই হউক না কেন। আপনার ব্যাবসায়য়ের ধরণ অনুযায়ী আপনাকে আপনার সম্ভাব্য ক্রেতাদের কাছে পৌছাতে হবে। মানে আপনি যদি বয়স্ক লোকদের প্রডাক্ট নিয়ে কাজ করেন তাহলে অবশ্যই কম বয়সী যুবক ছেলে মেয়েদের কাছে রিচ করলে আপনার ব্যাবসায় হবে না। ফেসবুকই আপনাকে সাহায্য করবে আপনার ব্যাবসায়ের ধরণ অনুযায়ী লোকেদের কাছে আপনাকে রিচ করাতে যারা আপনার ব্যাবসায়ের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। তবে আপনাকে জানতে হবে কিভাবে আপনি ফেসবুকের সাহায্য নিবেন।

নিচের বেসিক বিষয়গুলো জানা আপনার ব্যবসায়কে সফল করার জন্য খুবই জরুরী। এর মাধ্যমে আপনি আপনার ব্যাবসায়ের নিদিষ্ট লক্ষ্য পুরনের জন্য ফেসবুকে আপনার কার্যক্রমের উপর ফোকাস করতে পারেন।

যেসব বিষয় জানতে হবেঃ

১। পেইজ সেট আপ করা

২। আপনার অডিয়েন্স চিহ্নিত করা

৩। আবেদনময়ী / প্ররোচনাকারি কনটেন্ট তৈরি করা।

৪। বিজ্ঞাপন

৫। মুল্যায়ন এবং সমন্বয় করা।

 

১। পেইজ সেট আপ করাঃ

facebook basic for facebook marketing

এটি হবে ফেসবুকে আপনার ব্যাবসায়ের কেন্দ্রস্থল। আপনার ফেসবুক পেইজ যেভাবে আপনার ব্যাবসায়কে সাহায্য করতে পারেঃ

  • সহজে খুজে পেতেঃ

লোকেরা যখন আপনাকে ফেসবুকে খুজবে তারা খুব সহজেই আপনাকে খুজে পাবে।

  • কানেক্টেড থাকতেঃ

যারা আপনার পেইজে লাইক দেয়, আপনার পোষ্ট পড়ে , বন্ধুদের সাথে শেয়ার করে  এবং চেক ইন করে আপনি তাদের সাথে সব সময়ই কানেক্টেড থাকতে পারেন। করতে পারেন ওয়ান টু ওয়ান কনভারসেশান।

  • সময়ানুবর্তী থাকতেঃ

আপনার পেইজ টি আপনাকে বিশাল সংখ্যক  জনগোষ্ঠীর কাছে বার বার পৌছাতে সাহায্য করবে। আপনি তাদের আগ্রহ ও প্রয়োজন অনুযায়ী মেসেজ দিয়ে সব সময়ই সংযুক্ত থাকতে পারেন ।

  • ইনসাইটফুল হতেঃ

আপনি সব সময় আপনার পেইজের উপর বিশ্লেষণ করে বুজতে পারবেন আপনার ক্রেতা কারা এবং বাজার কার্যক্রম কি কি?

আপনার পেইজ সেটআপের পর আপনি একটি ওয়েব এড্রেসের জন্য আবেদন  করতে পারেন। এড্রেসটি হতে  পারে এমনঃ ফেসবুক/ আপনার কোম্পানি নাম । এটি আপনার কোম্পানিকে সহজে খুজে পেতে সাহায্য করবে। এর কার্যকারিতা আরো বাড়াতে এই ঠিকানাটি আপনি আপনার ব্যাবসায় কার্ড , ওয়েব সাইট, এবং অন্যান্য মার্কেটিং ম্যাটেরিয়ালে ব্যাবহার করতে পারেন।

মনে রাখতে হবেঃ আপনার ফেসবুক পেইজটি হচ্ছে আপনার ব্যবসায়ের বর্ধিত রুপ। এই একটা উপায় যার মাধ্যমে আপনি সবচেয়ে দরকারি লোকেদের মাযে আপডেট ও অন্যান্য সব কিছু শেয়ার করতে পারেন। এটি সব সময়ই প্রস্তুত মোবাইল ও ডেক্সটপে আপনাকে আপনার কাস্টমারদের সাথে সব সময়ই এনগেগ থাকতে।

কিভাবে একটি ফেসবুক পেইজ খুলবেন।

দেখুন ভিডিওঃ

২। আপনার অডিয়েন্স চিহ্নিত করাঃ

facebook basic for facebook marketing

ফেসবুকের মাধ্যমে আপনি যে শুধু অনেক লোকের কাছে খুব সহজে পোছে যেতে পারবেন না তাই না , আপনি একেবারেই সুনিদিস্টভাবে সেসব লোকদের কাছে পোছাতে পারবেন যাদের আপনার ক্রেতা হবার সম্ভাবনা অনেক বেশি।

কানেক্ট থাকতে যে বিষয়গুলো বিবেচনায় রাখতে হবেঃ

  • সাধারন ভাবে আপনার কিধরনের আদর্শ ক্রেতা আছে ?
  • তাদের বয়স কত এবং তারা কোথায় বাস করে ?
  • আপনার ব্যাবসায় কিভাবে তাদেরকে সাহায্য করতে পারে ?
  • গ্রুপটি কি নিদিস্ট কোন মেসেজ, পণ্য অথবা সেবার প্রতি আগ্রহী? কোন কিছু বিক্রয় বা সময় মত অফার করা যাবে কি ?

আপনার অডিয়েন্স গ্রুপ নির্মাণ করতে আপনার বর্তমান কাস্টমার ও সাপোর্টারদেরকে আপনার ফেসবুক পেইজে লাইক দিতে বলুন। তাদের নিউস ফিডে আপনার পোষ্টগুলো  দেখার সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি থাকবে। এছাড়া বিল্ড ওডিয়েন্স বাটন টিকে ও ভালভাবে আবিস্কার করুন।

  • আপনার বন্ধুকে আমন্ত্রণ জানানঃ

সবার আগে অবশ্যাই যা করতে হবে সেটা হল আপনার পরিচিত মানে ফ্রেন্ডস এন্ড ফ্যামিলিকে আপনার পেইজ সম্পর্কে জানান যাতে করে তারা আপনার পেইজে লাইক দিয়ে আপনাকে সমর্থন জানাতে পারে। প্রাথমিকভাবে এই অডিয়েন্সেরাই আপনার বিশ্বাসযোগ্যতা বাড়াতে সাহায্য করবে এবং আপনার প্রচার চালাবে।

  • আপনার পেইজটি শেয়ার করুনঃ

আপনার পেইজকে আপনি অবশ্যই লাইক দিবেন এবং শেয়ার করবেন। আপনি নিজেই নিজের ব্যাবসায়ের মুখপাত্র হয়ে উঠুন।

  • আপনার ব্যাবসায় কনটাক্টগুলোকে আমন্ত্রণ জানানঃ

লোকেদের ইমেইল পাঠাবার একটি তালিকা আপলোড করতে পারেন যেন তারা আপনার নতুন পেইজ সম্পর্কে জানতে পারেন।

মনে রাখবেনঃ খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি হলো এটি শুধুমাত্র লাইকের ব্যাপার না। এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ  যে, ফেসবুকে আপনি যাদের সাথে যুক্ত আছেন তাদের সাথে সত্যিকার অর্থেই যোগাযোগ স্থাপন করা। আপনি যদি এই কাজটি ভাল ভাবে করতে পারেন তাহলে তারাই আপনার গল্প অন্যদের বলবে, ছড়িয়ে দিবে।

 

ফেসবুক এডভারট টারগেটিং অপসান নিয়ে আরো জানুন

দেখুন ভিডিওঃ

 ৩।আবেদনময়ী /প্ররোচনাকারি কনটেন্ট তৈরি করাঃ

compelling content

আপনাকে নিয়মিত পোষ্ট, ফটো বা অন্যান্য আপডেটের সময় লক্ষ্য রাখতে হবে যে, ক্রেতারা মজার ও উৎসাহ-ব্যাঞ্জক মনে করছে কোনটিকে। এ ব্যাপারটি ভালভাবে বোজার জন্য আপনি ভিন্ন ভিন্ন পোষ্ট দিয়ে পরীক্ষা নিরীক্ষা চালাতে পারেন। আপনার অডিয়েন্স হয়ত ফটো পছন্দ করতে পারে, আবার তারা হয়ত উপকারী বিভিন্ন লিঙ্ক শেয়ার করা ও পছন্দ করতে পারে। তাদের পছন্দের বিষয়টি ভালভাবে জানতে আপনি দেখতে পারেন ফেসবুক পেইজ ইনসাইটস।

 

  • অথেনটিক হতে হবেঃ

আপনি নিজে যেসব পোষ্ট দেখে বলেন ‘ওয়াও’। শুধুমাত্র সেধরনের পোষ্ট শেয়ার করবেন, তাহলে আপনার কাস্টমাররাও সে পোষ্ট দেখে বলে উঠবে ‘ওয়াও’।

  • রেস্পন্সিভ হতে হবেঃ

কেউ যদি আপনার পোস্টে কমেন্ট করেন তাহলে তাদেরকে যত দ্রুত সম্ভব উত্তর করতে হবে, যাতে করে তারা বুজতে পারেন , আপনার কোম্পানি তাদেরকে শুনছে এবং আপনি তাদেরকে গুরুত্ব দিচ্ছেন। কখনো কখনো আপনার হয়ত কোন প্রশ্নের উত্তর দিতে সময় প্রয়োজন হতে পারে, সেক্ষেত্রে আপনি অবশ্যই তাদেরকে জানাতে ভুল করবেন না যে, আপনি তার প্রশ্নের উত্তর প্রস্তুত করছেন।

  • ধারাবাহিক হতে হবেঃ

আপনি যত বেশি ধারাবাহিক ভাবে পোষ্ট করবেন, তত বেশি কানেক্ট থাকা সম্ভব হবে, এবং তত বেশি বিশ্বাস অর্জন করা সম্ভব হবে। আপনার পোস্টের জন্য একটি সিডিউল ঠিক করে নিতে পারেন।

  • কার্যকর উপায় প্রয়োগ করতে হবেঃ

যে ধরনের পোষ্ট অনেক বেশি এনগেগমেন্ট পাবে। সেগুলোর মত করে পোষ্ট দিতে পারেন।

  • সফল পোস্টগুলোকে সফল প্রমোশান করতে হবেঃ

কোন বেশি এনগেগমেন্ট পাওয়া পোষ্টকে আরো বেশি লোকের কাছে পৌছে দিতে সেটিকে প্রমোট করতে পারেন। লোকজন আপনার পোস্টে লাইক, কমেন্ট ও শেয়ার করলে, তাদের বন্ধুরা ও তাদের নিউজ ফিডে সেসব পোষ্টগুলো দেখতে পাবে।

মনে রাখতে হবেঃ সফল হবার রেসিপি হচ্ছে পেইজ পোষ্ট তৈরি করা এবং কাস্টমারদের কাছে মজার এবং মূল্যবান কিছুর বিজ্ঞাপন দেয়া। একই সাথে মনে রাখতে হবে আপনার মেসেজ যেন সঠিক লোকেরা দেখে।

 কিভাবে আপনার ফেসবুক পেইজে এনগেগিং পোষ্ট তৈরি করবেন জানতে

দেখুন ভিডিওঃ

৪। বিজ্ঞাপনঃ

 facebook ad

ফেকবুক পেইজের মাধ্যমে আপনি যখন আপনার কাস্টমারদের সাথে কানেক্ট থাকতে শুরু করবেন ।তখন আপনি আপনার পণ্য বা সেবা সম্পর্কে আগ্রহী অন্যান্য লোকেদের ও খুজে পেতে চাইবেন। ফেসবুক বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে আপনি আপনার সঠিক মেসেজটি সঠিক লোকেদের মাযে পৌছে দিতে পারেন।

বিজ্ঞাপন তৈরিঃ

  • আপনি আপনার এডমিনপ্যানেল থেকে সরাসরি ফেসবুক এড বানাতে পারেন অথবা বিজ্ঞাপন তৈরি টুল ব্যাবহার করতে পারেন।
  • আপনার পেইজে কেন্দ্র করে আপনি যখন একটি কমিউনিটি বানাতে সক্ষম হবেন, তখন আপনি বিজ্ঞাপন তৈরি টুল ব্যাবহার যারা ইতোমধ্যেই আপনাকে লাইক করেছে তাদের বন্ধুদের কাছে আপনার এডটিকে পৌছাতে টার্গেট করতে পারেন। মুখে মুখে ক্রেতা বাড়ানোর এটি প্রাকৃতিক উপায়।
  • ভিন্ন ভিন্ন বিজ্ঞাপনের জন্য অডিয়েন্স নিদিষ্ট করে দিন। বিভিন্ন টার্গেট অডিয়েন্সের জন্য কয়েক সেট বিজ্ঞাপন তৈরি করুন। লোকেরা সাধারণত সেসব মেসেজের রিপ্লাই করে যেগুলো বিশেষভাবে তাদের জন্য বানানো হয়।
  • এটা নিশ্চিত করতে হবে যে, আপনার বিজ্ঞাপনটি ফেসবুকের যেখানেই প্রদর্শন করা হউক না কেন সেগুলোকে যেন অসাধারণ দেখায়।

 দেখুন বিস্তারিত স্পেসিফিকেশন সহ ফেসবুক এড ভারটস গাইড

দেখুন ভিডিওঃ

ফাইন টিউন টারগেটিংঃ

আপনার বর্তমান কাস্টমারদের নিয়ে ফেসবুকের কাস্টম অডিয়েন্স ব্যাবহার করে একটি প্রাইভেট লিস্ট বানাতে পারেন।তারপর আপনি এডভারট ক্রিয়েট টুল ব্যাবহার করে তাদের (বর্তমান কাস্টমার) মত অন্যান্য লোকদের ও খুজে বের করতে পারেন।

এডভারট ক্রিয়েট টুল ব্যবহার কার এড বানানোর সময় ইন্টারেস্টিং টারগেটিং ব্যাবহার করে সেসব লোকদের কাছে পোছে যেতে পারেন যারা ইতোমধ্যেই লাইক দিয়েছে বা আপনার দেয়া অফারের সাথে মিল আছে এমন কোন কিছুর সাথে সংযোগ রয়েছে।

মনে রাখবেনঃ এড থেকে আপনি সবচেয়ে বেশি রিটার্ন অন ইনভেস্টমেন্ট পেতে পারেন নিদিষ্ট অডিয়েন্সের জন্য এড বানাতে হবে।

 ফেসবুক এডভারটস তৈরি নিয়ে আরো জানতে

 ৫। মুল্যায়ন এবং সমন্বয় করাঃ

facebook measures

ফেসবুকে রয়েছে অনেক ভিন্ন ভিন্ন টুল যেগুলো ব্যাবহার করে আপনি কেমন পারফর্ম করছেন তা বুজতে পারবেন

  • আপনার পেইজ ইনসাইট আপনাকে আপনার পেইজের কার্যক্রম বিষয়ে আপ টু ডেট রাখবে।

 

  • পেইজ ইন সাইট ব্যাবহার করতে পারেন কারা আপনার মেসেজের রেসপন্স করেছে তাদের জানতে । সবচেয়ে বেশি এনগেগ আছে এমন লোকদের লিঙ্গ, বয়স এবং লোকেশান খুব ভালো ভাবে লক্ষ্য করতে হবে যেন আপনি টার্গেটেড বিজ্ঞাপন ও প্রমোশানের সময় তাদের সাথে এনগেগ থাকতে পারেন।

 

  • বিজ্ঞাপন বানানোর সময় লক্ষ্য রাখতে হবে যে, ভিন্ন ভিন্ন ইমেজ ও হেডলাইন ব্যাবহার করা হয়। এটা করা উচিত দেখার জন্য যে, কোনটি ভাল কাজ করছে। ফেসবুক অটোম্যাটিক্যালি আপনার কনটেন্ট অপ্টিমাইজড করে থাকে। যে কারনে আপনার বাজেটের বড় অংশটা যাবে যে এডটি ভাল পারফর্ম করছে তার জন্য।

 

  • লোকজনের কাছে জানতে চান যে, তারা কিভাবে আপনার সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। কোন একটি কলের শেষে, কোন জরিপে, বা কোন বিক্রিতে আপনি ক্রেতারা কি বলছেন সেটা ট্রাক করে রেখে দিতে পারেন

 

 

 

আনোয়ার হোসেন

Content Developer

Cell: 01916 572 657 , Email: hossain.anower009@gmail.com

ফেসবুকে আমি

আরো পড়তে পারেন :

১। ই-কমার্স সাইটে ভিজিটর আনার যত পদ্দতি এবং সেগুলো শেখার রিসোর্স । (১য় পর্ব)

২। ই-কমার্স সাইটে ভিজিটর আনার যত পদ্দতি এবং সেগুলো শেখার রিসোর্স । (২য় পর্ব)

৩। ই-কমার্স সাইটের জন্য কেন করবেন ভিডিও মার্কেটিং ?

৪।৭ টি মারাত্তক ভুল যা ই-কমার্স সাইটগুলো করে থাকে ।

৫।আপনার ই-কমার্স সাইটটিকে কিভাবে কার্যকর ও আকর্ষণীয় ভাবে সাজাবেন।

৬। ১০ ফেসবুক মার্কেটিং টিপস এন্ড ট্রিকস

৭। ফেসবুক থেকে ইমেইল আইডি সংগ্রহ করার ১০ টি স্মার্ট পদ্ধতি ।

তথ্য সুত্রঃ

http://socialnicole.com/how-to-use-facebook-for-business/

http://www.slideshare.net/pam4187/facebook-basics-for-business

https://www.facebook.com/business/overview

http://mashable.com/guidebook/facebook/

 

 

Comments

comments

About The Author


Sky is not the Limit, Every Thing is Possible.Hi, This is Anower Hossain. I am from Dhaka. I have completed MBA from Jagannath University. I love to read , watch cricket and travel. I have worked with articlelikhi.com as a content writer. At present i am working with http://online-kenakata.com/ and http://projuktishop.com/ as a online marketer and a SEO expert beside oDesk and fiverr. Want to reach the sky. Let’s see... Cheers.Phone: 01916572657Mail:hossain.anower009@gmail.comFacebook: https://www.facebook.com/anower.hossain.3192Skepe:anower009

No Comments

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *