টেক্সট কনটেন্ট কিভাবে আপনার পন্যের প্রসারে সাহায্য করে

915
কমার্শিয়াল কনটেন্ট

ব্লগ কিভাবে আপনার পন্যের প্রসারে সাহায্য করে

জাহাঙ্গীর আলম শোভন

আমরা নিশ্চয় ঘরে ঘরে এসি ফ্রিজ বানাইনা এমনকি বানাতাম না। কেউ একজন সেটা উৎপাদন করে তারপর আমরা সে সংবাদ জানি তারপর বাজার থেকে কিনে আনি। এই যে সংবাদ জানা একটা ব্যাপার আরেকটা ব্যাপার বিস্তারিত বোঝা বা কনভিন্স হওয়া সেটা কিন্তু নির্ভর করছে আমরা ভোক্তাকে পন্যটা বা পন্যের মেসেজটা কতটা তারমতো করে দিতে পারছি তার উপর।

এর মধ্যে বিশেষ করে নতুন কোনো পন্য কিংবা নতুন কোনো ব্রান্ড বিশেষ করে একজন ই-কমার্স উদ্যোক্তা তিনি যদি নতুন কোনো পন্য বাজারে দিতে চান অথবা বাজারে প্রচলিত কোনো পন্য রয়েছে তিনি সে পন্যকে প্রতিযোগিতামূলক বাজারে নিজের পন্যটাকে চালাতে চান। তখন তাহলে অবশ্যই কাস্টমারকে ম্যানেজ করতে হবে। সেটা প্রচারের জোরে কিংবা কোয়ালিটির জোরেতে বটেই। কাস্টমারকে বোঝানোর ব্যাপারটাও রয়েছে। সেটা হতে পারে সুন্দর একটি লিফলেট, হতে পারে নজরকাড়া একটি ভিডিও, কিংবা একটি ব্লগ অথবা একটি পন্য বিবরণী বা প্রোডাক্টস ডেসক্রিপশন এর মাধমে।

 

এবার আসি কিভাবে একটি ব্লগ আপনার পন্যের প্রসারে সাহায্য করে।

প্রথমত:

তথ্য ও বিবরণ এর মাধ্যমে। একটি ব্লগের মধ্যে থাকে সে পন্যের সুবিধাগুলো, থাকতে পারে ব্যবহারবিধি, পন্যের ফিচার, ইতিহাস এমনকি গুনাগুনের পাশপাশি কিভাবে আরো ভালোভাবে ব্যবহার করা যায় সেটা দিয়েও ব্লগ লেখা যেতে পারে। সে ব্লগ প্রেস রিলিজ কিংবা ফিচার এর মতো হতে পারে। হতে পারে গল্প কিংবা কেস স্টাডির মতো, হতে পারে সাক্ষাৎকার কিংবা প্রশ্নোত্তরের মতো, হতে পারে ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা কিংবা রম্য লেখার মতো। তাতে করে পড়ার মাধ্যমে পাঠক পন্য সম্পর্কে জানবে।

দ্বিতীয়ত:

আপনি রিলেটেড ব্লগ দিয়েও ক্রেতা আকর্ষণ করতে পারেন। মনে করুন আপনি একটি ফ্যাশনওয়ার শপ চালান বা আপনার একটি অনলাইন শপ আছে পরিধেয় বস্ত্র নিয়ে। এখন এর পাশাপাশি আপনি একই কিংবা আলাদা ডোমেইনে ব্লগ লিখতে পারেন। যার বিষয়বস্তু হবে হয়তো লেটেস্ট ফ্যাশন নিউজ অথবা তারকাদের পছন্দের পোষাক অথবা পোশাক সংক্রান্ত বিভিন্ন টিপস। ভোক্তা সাধারণ তাদের প্রয়োজনে কিংবা জানার জন্য সেটা পড়বে। তাতে আপনি আপনার পন্যের কথাও শেষের দিকে লিখে দিতে পারেন যদি পন্যের সাথে যায়। আপনি সেখানে পন্যের এড ব্যানারও দিতে পারেন। মনে রাখবেন আপনি যখন দৈনিক পত্রিকা কেনেন সেটা কিন্তু নিউজ পড়ার জন্য কেনেন। কিন্তু পত্রিকা আপনার কাছে নিউজের সাথে বিজ্ঞাপন পাঠিয়ে দেয়। এবং কখনো কখনো সে এড দেখে আপনি পন্য কেনার সিদ্ধান্ত নেন।

তৃতীয়ত:

আপনি নিশ্চয় জানেন যে, আপনার সাইটে ভিজিটর আসলে আপনার বিক্রি বাড়বে আপনার বিক্রি বাড়লে লাভও বাড়বে। কিন্তু সাইটে ভিজিটর আসার অন্যতম প্রধান শর্ত হলো সমৃদ্ধ ও ইউনিক কনটেন্ট। কনটেন্ট আপনার সাইটের ভিজিটর আনবে। আপনি নিজস্ব ছবি, ভালো ভিডিও এবং নিজস্ব ব্লগ যখন দেবেন সেটা সরাসরি পন্য সংক্রান্ত হতে পারে অথবা পন্য সম্পর্কিত হতে পারে, হতে পারে ট্রিক্স এবং টিপস জাতীয় তাতে আপনার ভালো এসই ই ও করা থাকলে দেখবেন বিভিন্ন বিষয়ে গুগল থেকে সার্চ দিয়ে ভিজিটর আপনার সাইটে আসছে।

মনে রাখবেন আপনি ফেসবুকে এড দিয়ে কাস্টমার খোঁজার আর এখানে কাস্টমার আপনার খোঁজে এসেছে। যে কাস্টমার আপনি ডেকে এনেছেন আর যে কাস্টমার নিজের প্রয়োজনে এসেছে এই দুয়ের মধ্যে কার পন্য কেনার সম্ভাবনা বেশী সেটা আপনিই বলুন। আজকাল অনেক কোম্পানী এভাবে ক্রেতা আকর্ষণ এর জন্য ব্লগ তৈরী করে থাকে। যেমন chaldal.com এর রয়েছে bdromoni.com । যাতে গৃহিনীদের টার্গেট করে বিভিন্ন ব্লগ লেখা হয়। শিশুদের পন্যের সাইট www.zaanzee.com এর রয়েছে শিশুদের নানাবিষয় নিয়ে ব্লগ www.zaanzee.com/blog । অনলাইন টিকেট প্লাটফরম cholbe.com এর রয়েছে ভ্রমণ সংক্রান্ত ব্লগ www.swapnobaj.com, tourbd এর রয়েছে অনুরুপ ব্লগ www.tour.com.bd/blog, এমনকি keenlayjob এর রয়েছে ব্লগ www.keenlayjob.com/blog

একটা সুক্ষ্ম কথা মনে রাখুন। ধরুন আপনি ফেসবুকে প্রতিমাসে ১০ ডলার এড দিয়ে ১০ হাজার রিচ নেন। এটা কিন্তু এই মাসেই শেষ। শহরে পোষ্টার লাগাবেন ২ দিন পর ঢেকে যাবে। টিভিতে এড দেবেন যতদিন টাকা ঢালবেন ততদিন দেখাবে। কিন্তু আপনি যদি একটি ব্লগ লিখেন সেটা সুন্দরভাবে ভালো ছবি ও নিজস্ব লেখা দিয়ে (অন্যের কাছ থেকে কপি পেস্ট না করে) পেশ করেন। এবং মোটামোটি এসইও করা যায় তাহলে এই ব্লগ যতদিন থাকবে ততদিন আপনাকে ভিজিটর দেবে। আপনি নিজে যদি প্রয়োজনীয় কোনো জিনিস বা তথ্যের জন্য গুগলে সার্চ দেন তাহলে অন্যরাওতো দিতে পারে।

ব্লগ আপনি বসে বসে লিখতে হবে তা নয়। আপনি রিলেটেড লোক যেমন যে যেটা ভালো বোঝে তাকে দিয়ে সেটা লেখান। তবে আজকাল অনেক কনটেন্ট কোম্পানী বা কনটেন্ট প্রোভাইডার রয়েছে যারা আপনার হয়ে আপনার জন্য যেভাবে প্রয়োজন ঠিক সেভাবে ব্লগ ‍লিখে দেবে।

 

ভোক্তার কাছে নিয়ে যায়

টেক্সট কনটেন্ট বা লিখিত বিষয়বস্তু কিভাবে আপনার পন্যের প্রচার বা প্রসার করতে সাহায্য করে? আমরা প্রতিদিন অসংখ্য ছবি দেখি টিভি, পত্রিকা ও ইন্টারনেটে। আবার আমরা প্রতিদিন নতুন তথ্য পাই। এসব তথ্য আমরা ছবিতে ভিডিওতে কিংবা লেখার মাধ্যমে পাই। প্রতিদিন ফেসবুকে আমরা কিন্তু অসংখ্য তথ্য বা বার্তা বিনিময় করি। আমরা যেমন নিজের ভাবনা অন্যকে জানাই  আবার তেমনি অন্যের ভাবনা জেনে নিই। এসব ভাবনার ভেতরে থাকে নিউজ লিংক, ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা এমনটি পন্যের বিজ্ঞাপনও। আমরা অনেক সময় সচেতন কিংবা অচেতনভাবে এসব দেখে প্রভাবিত হই। এবং সেটা আমাদের জীবন যাত্রাকে বদলে দেয়। ব্লগ এভাবে আপনাকে এবং আপনার পন্যকে বিশ্বস্ত উপায়ে ভোক্তার কাছে নিয়ে যায়।

পন্যের বিস্তারিত তথ্য পৌছে দেয়

আগেই বলেছে ব্লগে আপনি পন্যের বিস্তারিত তথ্য দিতে পারবেন। বিবরনী, রিভিউ, ব্যবহারবিধি, ব্যবহারকারীর মতামত, কিভাবে ব্যবহার করলে নষ্ট হবেনা এমনি নানা কিছু দিতে পারেন। মনে করুন আপনি মসলার ব্যবসায় করেন। আপনি দারুচিনি এলাচি কি কি উপকারে আসে সেটা নিয়ে লেখা দিতে পারেন, আবার কোন কোন খাবারে দারুচিনি এলাচি লাগে সেটা দিতে পারেন, বিভিন্ন খাবারের রেসিপি লিখতে পারেন এমনকি মসলা দিয়ে নতুন আর কি খাবার বানানো যায় সেটার পরারমর্শ দিতে পারেন। কোন দেশের মানুষ কিভাবে মসলা খায়, মসলা খাবার উপকারিতা ইত্যকার নানাবিষয়ে আপনি পোষ্ট দিতে পারেন। এমনকি আপনি মসলার ব্যবসায়ী হয়ে মসলার অপকারীতা নিয়েও পোস্ট দেত পারেন, সাথে অবশ্য সেগুলো কিভাবে কাটিয়ে উঠবে তার টিপস।

ভিজিটর আনে:

আপনি যখন আপনার ওয়েবসাইটে ব্লগপোস্ট করবেন তখন এসইও এর মাধ্যমে সেটা গুগলের আওতায় থাকবে। যেকেউ ওই বিষয়ের কোনো শব্দ লিখে সার্চ করলে গুগল আপনার ঠিক সেই বিষয়ের লেখাটি টেনে নিয়ে দেখাবে। তখন কাস্টমার ভিজিট করবে। আপনি সে কাস্টমার টিকে পেয়ে গেলেন যে আপনার পন্য সংক্রান্ত কোনো বিষয়ে কিছু খুজচে বা জানতে আগ্রহী। এ ধরনের ভিজিটরদের পন্য কেনার সম্ভাবনা আম-ভিজিটরদের তুলনায় বেশী থাকে।

পন্য সংক্রান্ত সচেতনতা বৃদ্ধি পায়

কখনো কখনো পন্য সম্পর্কে জনগন কম জানে কখনো আবার ভুল ধারণা থাকে। আপনি যখন এক বা একাধিক লেখার মাধ্যমে পন্যের সঠিক তথ্য, বিশেষ করে পাশ্বপ্রতিক্রিয়া, ব্যবহারবিধি, গুনাগুন সাথে একটা ছবি সম্ভব হলে ভিডিও দিয়ে দেবেন তখন পন্য সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধি পাবে যা আপনার পন্য প্রচারে ভূমিকা রাখবে।

এভাবে একটি ব্লগ যেটা হবে আপনার পন্য বা সেবার সম্পর্কিত তার মাধ্যমে আপনি আপনার পন্যকে খুব ইফেকটিভ ওয়েতে ভোক্তার কাছে পৌছে দিতে পারবেন। তবে আপনাদের প্রতি অনুরোধ আপনি চোট একটা লেখা দেন, কম লেখা দেন, ইংরেজী থেকে অনুবাদ করে দেন তবুও কপি পেস্ট করা লেখা দেবেন না।

 

Comments

comments

About The Author



Freelance Consultant, Writer and speaker . Jahangir Alam Shovon has been in Bangladeshi Business sector as a consultant, He has written near about 500 articles on e-commerce, tourism, folklore, social and economical development. He has finished his journey on foot from tetulia to teknaf in 46 days. Mr Shovon is social activist and trainer.

No Comments

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *