ইউরোপের ই-কমার্স ব্যবসাঃ জার্মানি ই-কমার্স ব্যবসা পর্ব

848
জার্মানি ই-কমার্স ব্যবসা

ইউরোপের ই-কমার্স ব্যবসাঃ জার্মানি ই-কমার্স ব্যবসা পর্ব

“ই-কমার্স ফাউন্ডেশন” ২০১৬ সালে জার্মানি ই-কমার্স ব্যবসা এর ওপর “জার্মান বিটুসি ই-কমার্স রিপোর্ট ২০১৬” নামে এক রিপোর্ট প্রকাশ করে । তাতে একে একে উঠে আসে জার্মানের ক্রমাগত অগ্রসরমান ই-কমার্স সেক্টরের বিভিন্ন দিক । বিশ্বে ই-কমার্স সেক্টরে সবচেয়ে বেশি আধিপত্য করছে ইউরোপের দেশগুলো, বিশ্বের দ্রুত অগ্রসরমান দশটি ই-কমার্স ব্যবসার দেশের মাঝে পাঁচটি দেশ ইউরোপে অবস্থিত । জার্মানি ইউরোপের অন্যতম প্রভাবশালী ই-কমার্স ব্যবসার দেশ, পুরো ইউরোপজুড়ে জার্মান ই-কমার্স সেক্টরের সুনাম রয়েছে ।জার্মানিতে ই-কমার্স ব্যবসা ক্রমাগতভাবে শক্ত অবস্থানে যাচ্ছে এবং ইউরোপের ই-কমার্স ব্যবসার দ্বিতীয় বৃহত্তম  ই-কমার্স ব্যবসার দেশ হচ্ছে – জার্মানি ।

জার্মান ই-কমার্স

জার্মান ই-কমার্স

বিশ্বের দ্রুত ক্রমশ বর্ধমান ১০ টি কমার্স ব্যবসার দেশ

১। ইউএসএ

২। চীন

৩। জাপান

৪। দক্ষিণ কোরিয়া

৫ । ইউকে

৬। জার্মানি

৭। নেদারল্যান্ড

৮। নরওয়ে

৯। সিঙ্গাপুর

১০। সুইডেন

 

বিশ্বের দ্রুত ই-কমার্স ব্যবসার অগ্রসরমান দশটি দেশের মাঝে জার্মানি একটি । ২০১৭ সালে এসে প্রায় ৮০.৬ মিলিয়ন জনসংখ্যার দেশ জার্মানি , যা মাত্র ১.০৭ শতাংশ বিশ্বের মোট জনসংখ্যার অনুপাতে । মোট জনসংখ্যার প্রায় ৭৭.৩ ভাগ শহরে বাস করে , এতে করে ই-কমার্স ব্যবসা প্রসারে জার্মানিতে খুব ভালো অবস্থা পরিলক্ষিত হচ্ছে ।

 

জার্মান ই-কমার্স মার্কেট ২০১৫ সালে ছিল ৬২ বিলিয়ন ডলারের, সেখানে আশা করা হচ্ছে প্রায় ৮২ বিলিয়ন ডলারের মত একটা ই-কমার্স মার্কেট দাঁড়িয়ে যাবে জার্মানিতে ২০১৮ সালে । ইউরোপের দ্বিতীয় বৃহত্তম ই-কমার্স ব্যবসার বাজার হচ্ছে জার্মানি , গত কয়েকবছর যাবত, সেখানকার ই-কমার্স বাজারে বেশকিছু ইতিবাচক অবস্থা দেখা যায় ।

২০১৫ সালের ওপর “ই-কমার্স ফাউন্ডেশন” এর করা রিপোর্টের এক জরিপে দেখা যায় , জার্মানির প্রায় ৭০ মিলিয়নের ওপর মানুষের বয়স ১৫ বছর বয়সের ওপর , প্রায় ৬৩ মিলিয়ন মানুষ ইন্টারনেট ব্যবহার করেন এবং প্রায় ৫১.৬ মিলিয়ন মানুষ অনলাইনে কেনাকাটা করে থাকেন । জার্মানির মোট জিডিপি ৩,০২৫ বিলিয়ন ইউরো , আর জিডিপিতে ই-কমার্স এর অবদান প্রায় ১.৯৭ ভাগ । ৬৫ ভাগ জার্মানি স্মার্টফোন ব্যবহার করে , এবং তাদের রিপোর্টে প্রকাশ করা হয় যে, জার্মানিতে বিটুসিতে ২০১৩ সালে টার্নওভার ছিল ৪৬.৯ বিলিয়ন ইউরো , ২০১৪ সালে ছিল টার্নওভার ছিল ৫২.৭ বিলিয়ন ইউরো   এবং ২০১৫ সালে এসে টার্নওভার হয়েছিল ৫৯.৭ বিলিয়ন ইউরো । এ রিপোর্ট “জার্মান ন্যাশানাল ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন”  এবং ই-কমার্স ইউরোপসহ বেশকিছু প্রতিষ্ঠানের সহযোগিতায় প্রস্তুত করা হয় ।

 

 কেন জার্মানিতে ই-কমার্স জনপ্রিয় হয়ে উঠছে

জার্মানিতে ই-কমার্স ব্যবসা জনপ্রিয় হয়ে উঠার পিছনে সবচেয়ে বড় ভূমিকা হচ্ছে সেই দেশের মানুষ অনলাইনে বিচরণ করছে বেশি করে , এবং ২০০৪ সাল থেকে ২০১৩ সালের দিকে লক্ষ্য করলে দেখা যাবে, অধিকাংশ মানুষ সরাসরি কেনাকাটা করা থেকে অনলাইনে ডিজিটাল সিস্টেমে কেনাকাটা করতে বেশি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ এবং সময় খরচ কম হয় ভেবে থাকে এবং এই সময়ের মাঝে জার্মানিতে অনলাইনে কেনাকাটার পরিমান তিনগুণ বেড়েছে , যা ১৩ বিলিয়ন ইউরো থেকে বেড়ে ৪৭ বিলিয়ন ইউরো হয়েছে । 

জার্মানিতে ই-কমার্স ব্যবসার অবস্থান সুদৃঢ় হওয়ার গল্প

“জার্মান ন্যাশানাল ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন” – Handerbund” ২০০৮ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় এবং এটি  ইউরোপের সর্ববৃহৎ ই-কমার্স  অ্যাসোসিয়েশন, তাদের অ্যাসোসিয়েশনে ৫০,০০০ এর অধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান মেম্বার । তারা যুক্ত আছে “ই-কমার্স ইউরোপ” সংস্থার সাথে , ১৪ জন অভিজ্ঞ আইনজীবী রয়েছেন এই ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশনে ই-কমার্স বিষয়ক আইনি সহায়তার জন্যে এবং তারা তাদের সদস্যদের টেলিফোন ও ই-মেইল এর মাধ্যমে বিভিন্ন সহায়তা প্রদান করে থাকে  ।  “জার্মান ন্যাশানাল ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন” – Handerbund” তাদের সদস্য প্রতিষ্ঠানদের ট্রাস্টমার্ক বরাদ্ধ করে থাকে , যদি সেই প্রতিষ্ঠান তাদের দেয়া সকল নিয়ম-কানুন এর বিষয় অর্জন করতে পারে । তারা একই সাথে ই-কমার্স ইউরোপ ট্রাস্টমার্ক প্রদান করছে , এতে করে তারা অন্তর্ভুক্ত করছে নিজেদের ইউরোপের কনজ্যুমার আইনের অন্তর্গত ।

 

“Handerbund”  শুধুমাত্র জার্মানিতেই তাদের সহায়তা দেয়া সীমাবদ্ধ রাখেনি , তারা ইউরোপের বিভিন্ন দেশ যেমন , স্পেন,ফ্রান্স,ইউকে,অস্ট্রিয়া,ডেনমার্ক ,বেলজিয়াম , গ্রিস,ইউকে এবং নেদারল্যান্ড’কেও সহায়তা দিচ্ছে ।

সাম্প্রতিক সময়ে “Handerbund” , “ফেয়ার কমার্স” নামে একটা উদ্যোগ নিয়েছে , এ উদ্যোগের কারণ হচ্ছে সুষ্ঠ প্রতিযোগিতা সৃষ্টি করা ই-কমার্স ব্যবসায় । এতে করে অনলাইন ব্যবসায়ীরা একে অন্যের ব্যাপারে কোন অভিযোগ থাকলে তা লিখিত আকারে অভিযোগ করতে হবে । “ফেয়ার কমার্স” এর আওতায় রয়েছে ৩৩,০০০ সদস্য , যারা ই-কমার্স ব্যবসার শক্তি বৃদ্ধি করছে সুষ্ঠ প্রতিযোগিতা করে, আর এটাই ই-কমার্স ব্যবসা এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার শক্তি ।

 

জার্মান ই-কমার্স মার্কেট এর কিছু পরিসংখ্যান

 

  • ২০১৫ সালে, ৩২ ভাগ ই-কমার্স প্রোডাক্ট এর বিক্রি হয় মোবাইলের মাধ্যমে , যার ১৬ ভাগ ছিল স্মার্টফোন ব্যবহার করে এবং ১৬ ভাগ ছিল ট্যাবলেট ডিভাইস ব্যবহার করে ।
  • ৬০ ভাগের ওপর ই-কমার্স স্টোর ওমনি চ্যানেল সিস্টেম ব্যবহার করেছে তাদের প্রোডাক্ট বিক্রির ক্ষেত্রে । “ওমনি চ্যানেল” সিস্টেম হচ্ছে , ব্যবসার অনলাইন এবং অফলাইনের সমন্বিত একটি ব্যবস্থা, অর্থাৎ , কোম্পানির অনলাইনে যেমন অবস্থান থাকবে , ঠিক তেমনি একই প্রতিষ্ঠানের অফলাইনে দোকানও থাকবে । অর্থাৎ, অনলাইন এবং অফলাইন দুইটি ব্যবস্থা সমন্বিত করে ই-কমার্স কোম্পানিগুলো ব্যবসা করে ।
  • জার্মান ক্রেতারা সরাসরি প্রোডাক্ট কেনা এবং অনলাইনে পেমেন্ট সিস্টেমের মাধ্যমে প্রোডাক্ট কিনে থাকে ।
  • জার্মানিতে ২০১৮ সালের মধ্যে ৪৯ মিলিয়নের বেশি মানুষ অনলাইনে কেনাকাটা করবে বলে আশা করা হচ্ছে ।
  • ২০১৫ সালে জার্মানিতে ক্রেতারা ১৩ বিলিয়ন ডলার এর ওপর ব্যয় করেন হলিডের সময়গুলোতে কেনাকাটা করে ।

জার্মানির সর্ব বৃহৎ প্রথম সারির দশ ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান

  • Amazon
  • Otto
  • Zalando
  • de
  • Cyberport
  • Bonprix
  • Tchibo
  • Conrad
  • Alternate
  • Apple

 

আমেরিকান জায়ান্ট ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান আমাজন এবং জার্মানিতে প্রতিষ্ঠিত ”Otto” জার্মানির প্রায় অর্ধেক অনলাইন ব্যবসা কর্তৃত্ব করছে । ২০১৩ সালের এক সমীক্ষায় দেখা গেছে , জার্মানির ৩৪ ভাগ অনলাইন ক্রেতা ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে কেনাকাটা করে। জার্মানিতে  অনলাইন ক্রেতাদের কাছে সবচেয়ে অধিক পছন্দের তালিকায় আছে ফ্যাশন,এরপর কনজ্যুমার মিডিয়া এবং ইলেকট্রনিক্স প্রোডাক্ট।

কনজ্যুমার মিডিয়া এর মধ্যে আছে বই , মিউজিক , মুভি ও ভিডিও গেমস । জার্মান ক্রেতারা অফলাইনে কেনাকাটা করা থেকে অনলাইনে কেনাকাটা করতে অধিক পছন্দ করেন । বিটকমের সমীক্ষা মতে, ৬৫ ভাগ জার্মান নাগরিক ২০১২ সালে অনলাইনে কেনাকাটা করতে পছন্দ করতো, যা ২০০৮ সালের অনলাইন ক্রেতার তুলনায় ৫৩ ভাগ বেশি । আরেক সমীক্ষায় বলা হয় যে, অনলাইনে দেয়া অর্ডারের  ৫০ ভাগ অর্ডার জার্মান ক্রেতারা ব্যাক করে থাকে  ।

 

 জার্মানিতে জনপ্রিয় প্রোডাক্ট এর ক্রম তালিকা

 

১। পোশাক

২। পার্সোনাল লাইফ স্ট্যাইল

৩। তথ্য প্রযুক্তি

৪। মিডিয়া এবং বিনোদন

৫। হোম এবং গার্ডেনিং

৬। টেলিকম

৭। স্বাস্থ্য এবং সৌন্দর্য

৮। ইলেকট্রনিক্স

৯। স্পোর্টস

১০। খাদ্য

 

জার্মানি ই-কমার্স প্রোডাক্ট

জার্মানি ই-কমার্স প্রোডাক্ট

জার্মানি ই-কমার্স ব্যবসাকে এগিয়ে নিতে কি করছে

 

জার্মানি বিভিন্ন ই-কমার্স কোম্পানি তাদের অনলাইন কেনাকাটার ব্যবসা আরও বৃদ্ধি করতে এবং ক্রেতাদের দ্রুত সেবা দিতে বেশকিছু নতুন পদক্ষেপ নিয়েছে । ইতিমধ্যে, বেশকিছু ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান “সেম ডে ডেলিভারি ” দেয়ার চেষ্টা করছে এবং কম সময়ে প্রোডাক্ট ক্রেতার কাছে ডেলিভারি দেয়ার চেষ্টা করছে । প্রকৃতপক্ষে, ক্রেতাকে গুরুত্ব দিয়ে এবং সেবা দ্রুত দেয়ার মাধ্যমে প্রতিযোগিতার বাজারে ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলো একটি থেকে আরেকটি এগিয়ে থাকার চেষ্টা করছে ।

 

জার্মানির অনলাইন ব্যবসার কিছু আলোচিত বিষয়

 

  • ২০১৭ সালে এসে জার্মান ই-কমার্স সেক্টরে লক্ষ্য করার মতন বেশকিছু পরিবর্তন আসছে । ইতিমধ্যে বার্লিন ভিত্তিক ফুড ডেলেভারি প্রতিষ্ঠান “ফুড পান্ডা” অধিকৃত করেছে আরেক বার্লিন ভিত্তিক ফুড ডেলেভারি প্রতিষ্ঠান  “ডেলেভারি হিরো” ,  এবং উভয় প্রতিষ্ঠান “রকেট ইন্টারনেট” প্রতিষ্ঠান দ্বারা পরিচালিত হচ্ছে এবং “ডেলেভারি হিরো” তাদের কার্যক্ষমতা ৩৭ ভাগের ওপর বৃদ্ধি করবে ।

 

  • অপরদিকে, জার্মান পেমেন্ট মেথড সিস্টেম “পে ডিরেক্ট” কাজ করা শুরু করেছে জার্মানির অনলাইন ফার্মেসী “ডক মরিস” এর সাথে , এখন থেকে এর ক্রেতারা পেমেন্ট মেথড সিস্টেম “পে ডিরেক্ট” এর মাধ্যমে তাদের কেনাকাটা করতে পারবে ।

 

  • এদিকে ২০১৭ সালের মধ্যে ফ্যাশন অনলাইন শপ “জেল্যান্ডো” এক হাজার প্রকৌশলী হায়ার করার চিন্তা করছে , এতে করে জার্মান ফ্যাশন রিটেইলে টেকনোলোজি টিম অনেক বেশি সমৃদ্ধ হবে ।

 

তথ্যসূত্রঃ

১। পিএফএসওয়েব

২। ই-কমার্স নিউজ

৩। ই-কমার্স ক্যাপিটাল

 

সবাইকে শুভেচ্ছা , ভালো থাকবেন ।

কনটেন্ট রাইটারNazmul Hasan Majumder

For Facebook profile : Click here 

For Facebook Page : contentever

_________________________________________

আরও লেখাসমূহ :

১। ২৫ টি অনলাইন ব্যবসার আইডিয়া এবং ই-কমার্স ব্যবসার নতুন সম্ভাবনা ক্ষেত্র

অ্যামাজন এফবিএ (FBA) বা “ফুলফিলমেন্ট বাই অ্যামাজন

ই-মেইল মার্কেটিং টুল : মেইলচিম্প | Mailchimp

সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন কিং বা এসইও কিং | SEO KING “Search Engine Optimization King”

 

কমার্স সাইট কিভাবে ক্রেতার নির্ভরতা অর্জন করবে( SSL part)

কমার্স বিজনেস কোম্পানি মডেল

 

কমার্স সাইট ফর কাস্টমার (ডোর টু ডোর)

 

কমার্স সাইটে প্রোডাক্ট রিভিউ কনটেন্ট কিং

 

কমার্স সাইট বিজ্ঞাপন কৌশল

১০। কমার্স সাইটের বিজ্ঞাপনের জন্যে ফেসবুকে “ Page Post Engagement বুস্ট পোস্ট” !!!!!

 

কমার্স সাইটে বিজ্ঞাপন হিসেবে এনিমেশন

 ১২ কমার্স সাইটের বিজ্ঞাপনএর জন্যে ফেসবুক পেজ থেকে কিভাবে ভিডিও মার্কেটিং করবেন !!!!

 

কমার্স সাইটের বিজ্ঞাপনের জন্যে ফেসবুকে Page Promote কম খরচে !!! !!! !

Comments

comments

About The Author



Hey, My name is Nazmul Hasan Majumder . I'm passionate about writing & Seo Analyst, love to work on Animation & Web Development. All time, I usually try to up to date on tech stuff & E-Commerce industry,especially on marketing strategy & software of online world. You can join me on Facebook : https://www.facebook.com/nazmulhasanmajumder