ওয়ার্কশপ: সৃজনশীল মার্কেটিং
জাহাঙ্গীর আলম শোভন

সবুজের ভীড়ে একটু হলুদ রং আপনার চোখে লেখে যায় । কালার ম্যাচিং এর কারণে অনেকগুলো লাল বলের মধ্যে সাদা বলটি সুন্দর দেখায় ব্যতিক্রম বলে।একটি আলপনা সুন্দর হয় এতে রংএর খেলা আছে বলে। একটি জ্যামিতিক চার্ট ভালো দেখায় শৃংখলা আছে বলে। সারিবদ্ধ কোন জিনিস সুন্দর দেখায় গনিত আছে বলে একটি বিমূর্ত চিত্র সুন্দর দেখায় শিল্প আছে বলে।

প্রতিদিন আমরা অসংখ্য ইমেজ, এড, ছবি আরো কত কিছুইনা দেখি। দিনশেষ তারমধ্য থেকে ক’টিই বা আমরা মনে রাখি। কখনো কখনো একটিও আমাদের মনে থাকেনা। আর যেটি আমরা অনেকদিন ধরে মনে রাখি সেটির মধ্যে এমন কিছু থাকে যা সবসময় দেখা যায়না। এটা ব্যতিক্রম, এই ব্যতিক্রমটা যখন নান্দনিক হবে তখন সেটা একটা শিল্প আর এই শিল্পটা যখন কারো নিজস্ব সৃষ্টি হবে বা নিজষ¦ ধারণা থেকে তৈরী হবে তখন তা হবে সৃজণশীল। নিজে সৃজণকরা হয় বলে।

এখন প্রশ্ন হচ্ছে এই সৃজণশীলতাকে কাজে লাগানোর। তাও আবার মার্কেটিংএ যাতে প্রচারটা আলাদাভাবে গ্রাহকদের চোখে পড়ে এবং মনে থাকে। যদি বেশী ভালো লাগে তাহলে বেশী মনে থাকে আর বেশী মনে থাকলে বেশী বিক্রির একটা আশাতো করা যায়।

অনেকে বলেন সৃজণশীলতা একটা ন্যাচারাল বিষয়। এটাতো আর শিখে হয়না কিন্তু আজকাল এ ধারণা বদলে গেছে। দুনিয়ার সবকিছুর উপর ট্রেনিং আছে, আছে একাডেমকি কোর্স সৃজণশীল বিষয়গুলোও এর মধ্যে চলে এসেছে। সারাবিশ্ব জুড়ে আজ শিক্ষা ও প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দক্ষ জনশক্তি তৈরী হচ্ছে। এতে করে যেমনি কারো ন্যাচারাল সৃজণশীলতা থাকলে তা বিকশিত হয় কারণ প্রতিটি শিল্পর বিভিন্ন ফর্ম এখন এমন এক পর্যায়ে উঠেছে এবং এগুলো সম্পর্কে পৃথিবীর জ্ঞানসাধনা ইতোমধ্যে একটা পর্যায়ে গিয়ে পৌছেছে যে এজন্য  কাউকে তার প্রয়োজনীয় বিষয় সম্পর্কে ধারণা নেয়া ও কিছু জ্ঞান অর্জণ এর প্রয়োজন হয়। তা না হলে তিনি অন্যদের চেয়ে পিছিয়ে থাকবেন।
আর কেউ যদি এমন হন যে তিনি নিজেই খুব ক্রিয়েটিভ বা সৃজণশীল নন। তার জন্যও এ ধরনের ওয়ার্কশপ কাজে লাগবে। এ ধরনের মিটআপ থেকে তিনি যা পাবেন তা হলো কোনটাকে ক্রিয়েটিভ বলবেন আর কোনটাকে বলবেন না এই ধারণাটা । নিজে ক্রিয়েটিভ না হয়েও ক্রিয়েটিভিটি মূল্যায়ন করতে পারলে এবং সে বিবেচনা তার ব্যবসায় ও বিপননে কাজে লাগাতে হবে। তিনি যদি সঠিক আইডিয়া পান তাহলে তার কর্মীদের ক্রিয়েটিভ কাজ তিনি মূল্যায়ন ও আদায় করতে পারবেন সহজে।

এই ওয়ার্কশপে এতে মার্কেটিং শেখানো হবেনা তবে মার্কেটিং এ কিভাবে সৃজণশীলতাকে কাজে লাগানো যায় সে ব্যাপারে আলোচনা থাকবে। ক্রিয়েটিভিটি শিখিয়ে কাউকে ক্রিয়েটিভ বানানো হবেনা তবে ক্রিয়েটিভিটি কিভাবে কাস্টমারকে প্রভাবিত করে তার একটা ধারণা দেয়া হবে। কোনো মার্কেটিং টিপস এর জন্য এই ওয়ার্কশপ নয় তবুও কথায় কথায় কিছু টিপসতো আসতেই পারে। এতে ক্ষুদ্র ই কমার্স উদ্যোক্তাগণ যেসব মাধ্যম ব্যবহার করে বিপনন বা মার্কেটিং করছেন তার মধ্যেই কতটা সৃজনশীলতা ব্যবহার করা যায় তাই শেয়ার করবো আমরা। আর থাকবে কিছু হাতের কাজও।

creativeছবি: শেখ মিনন: প্রথম আলো কার্যালয়

রিখ: ৯ মে, ২০১৫, শনিবার< ফ্রেকড মিলনায়তন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, পলাশী মোড়।
রেজিস্ট্রেশন লিংক: https://docs.google.com/forms/d/1IX1IySsymegcwVHdSX89cW93axNy8Y0mO2ZEz3jta7A/viewform?c=0&w=1

1,993 total views, 3 views today

Comments

comments