product videography

 

                                               প্রোডাক্ট ভিডিওগ্রাফি

একজন ই-কমার্স ব্যবসায়ীর জন্যে প্রোডাক্ট ভিডিওগ্রাফি তার ব্যবসায়ের প্রসারের জন্যে অতীব জরুরী একটি দিক ।ব্যবসায়ী নিজের ব্যবসাকে তথা নিজের প্রোডাক্টসমূহের সাথে ক্রেতাকে কিভাবে পরিচয় করিয়ে দিবেন তার ওপর নির্ভর করে একজন ব্যবসায়ীর ব্যবসার প্রসার কিংবা তার প্রোডাক্ট এর জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি এবং এর বিক্রয় । কারণ একজন ক্রেতা অনলাইনে প্রোডাক্টগুলো ধরে দেখতে পারেন না , তাকে অবশ্যই ধরে দেখার মতন করে একটা ব্যবস্থা সৃষ্টি করে দিতে হবে । আর তার জন্য প্রোডাক্ট ভিডিও হতে পারে সর্বোত্তম মাধ্যম ।

কিন্তু কিভাবে প্রস্তুত করবেন ভালো একটি ভিডিওগ্রাফি ক্রেতার জন্যে তা নির্ভর করবে আপনি কি ধরণের সেবা দিতে চাচ্ছেন আপনার ক্রেতাকে আপনার সাইটের মাধ্যমে । সেই বিষয়গুলোকে আপনাকে মাথায় রেখে ভিডিও কয়েকটি ধাপের সহযোগিতায় নির্মাণ করতে হবে ।

১। প্রোডাক্ট নির্বাচনঃ আপনি যে প্রোডাক্টটির ভিডিও করতে চাচ্ছেন তার ভালো-মন্দ দিকগুলো ভালোভাবে বিশ্লেষণ করুন । কেন আপনি প্রোডাক্টটি বিক্রি করবেন, প্রোডাক্টটির গুণগত মানটি আপনি ঠিকভাবে ভিডিও এর মাধ্যমে উপস্থাপন করতে পারবেন ? আপনার প্রতিটি প্রোডাক্টকে বিভিন্নভাগ করে ফেলুন এবং সেই অনুযায়ী ভিডিওগ্রাফি করার মতন করে উপস্থাপন করার মতন করে অবস্থায় আনুন । ইলেকট্রনিক্স,
পোশাক, দৈনন্দিন জীবনের ব্যবহার্য সব প্রোডাক্ট আপনাকে বিভিন্ন ভাগে রেখে উপস্থাপন করার জন্যে তৈরি হতে হবে ।

২। আইডিয়া নিয়ে ভাবুনঃ আপনি কতক্ষণ আপনার প্রোডাক্ট এর ভিডিও করবেন । আপনার ক্রেতার বয়সসীমা কেমন ? বিষয়গুলো নিয়ে ভাবুন । কত সময়ের জন্যে করবেন ভিডিওটি ? এক থেকে দেড় মিনিটের হতে পারে । আবার আপনি ৩০-৪০ সেকেন্ডের মধ্যেও সময় বেঁধে রাখতে পারেন । উপস্থাপন নিয়ে ভাবুন ।

৩। গল্প কিংবা স্ক্রিপ্ট তৈরি করুনঃ একটি ছোট গল্প কিংবা স্ক্রিপ্ট তৈরি করুন । ভিডিও আপনার ক্রেতার কাছে তার মধ্যে পৌঁছানোর সবচেয়ে ভালো মাধ্যম । এখন কি ধরণের ভিডিও হতে পারে তা আপনার প্রোডাক্ট এর ওপর নির্ভর করছে । যেমন ধরুন আপনার প্রোডাক্ট যদি একটি মোটরসাইকেল হয়ে থাকে তবে চমৎকার একটা গল্পের উপস্থাপন আনতে পারেন । ধরলাম আপনি বাইক রেস এর গল্প উপস্থাপন করলেন যাতে একটি মেসেজও দিলেন ভালো । তাহলে মানুষ সেই মেসেজটি যতদিন মনে রাখবেন ততদিন আপনার মোটরসাইকেল প্রোডাক্ট এর কথা বলবেন এবং পরিচিত মানুষের কাছেও সেই গল্পটা বলতে গিয়ে মোটরসাইকেলের কথাও বলবেন । আবার আরেকটি উদাহরণ দেই , যেটা আমাদের সবার জানা । আমরা সবাই কম-বেশি “কার্টুন মীনা” দেখেছি । কি চমৎকার করে একেকটা পর্বে একেকটা বিষয় নিয়ে গল্প হতো , খেয়াল করতে পারছেন ? কেন আপনি সেই মেসেজ সেই কার্টুন এর কথা মনে করছেন । কারণ গল্প এবং মেসেজ । এখানে কিন্তু প্রোডাক্ট এবং মেসেজ সবই জনপ্রিয়তা পেলো । এইজন্যই হচ্ছে ভিডিওগ্রাফির প্রয়োজনীয়তা , এই জন্যেই আপনাকে একটি ভালো গল্প ও স্ক্রিপ্ট তৈরি করতে হবে । এটাই ক্রেতার মনে আপনার প্রোডাক্ট এর জন্যে একটা অনুভূতি তৈরি করবে । আপনাকে অবশ্যই আপনার প্রোডাক্ট হিসেবে গল্প তৈরি করতে হবে , মজার কোন গল্প হতে পারে , সামাজিক কোন গল্প হতে পারে , রোমান্টিক কোন গল্প হতে পারে। মনে রাখবেন প্রোডাক্ট এর সাথে গল্পের সামাঞ্জস্যতা থাকতে হবে । তা না হলে আপনি যে উদ্দ্যেশ্যে ভিডিও করলেন তা পূরণ হবেনা । প্রোডাক্ট এর রিভিউ দিতে পারেন ভিডিও এর নিচে লেখা আকারে ।

৪। প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতিঃ ভিডিও তৈরির জন্যে ভালো মানের একটি ডিএসএলআর লেন্সসহ , ট্রাইপড , জিবার্ম এবং লাইট এর ব্যবস্থা করতে হবে। টাংস্টেন বাল্ব কিংবা এনার্জি সেভিং বাল্ব ব্যবহার করতে পারেন ।

৫।প্রোডাক্ট উপস্থাপন করুনঃ প্রোডাক্ট এর গুণগত মান , প্রোডাক্ট দিয়ে কি হবে সেই কাজগুলো কথাগুলো দিয়ে আপনার প্রোডাক্টটিকে সুন্দরভাবে একটি গল্পের সাহায্যে উপস্থাপন করুন । খুব বেশি সময়ের ভিডিও যেন না হয় সেদিকে খেয়াল করবেন । কারণ খুব বেশি বড় ভিডিও আপনার ক্রেতার কাছে বিরক্তির কারণ হয়ে দাঁড়াবে । সেইদিকে খুব ভালো করে খেয়াল করবেন । প্রোডাক্টটি বিভিন্ন দিক কিংবা এঙ্গেল থেকে দেখান । যাতে ক্রেতা আপনার প্রোডাক্ট সম্পর্কে একটা স্বচ্ছ ধারণা পেতে পারে এই ভিডিও এর মাধ্যমে । সুন্দর করে লাইটের ব্যবস্থা করুন ,যাতে করে প্রোডাক্ট সুন্দরভাবে দেখা যায় । এক্ষেত্রে আপনি টাংস্টেন কিংবা কিছু এনার্জি সেভিং বাল্ব ব্যবহার করতে পারেন ।

৬। ব্র্যান্ড প্রমোটঃ আপনার কোম্পানি আপনার ব্র্যান্ড এই বিষয়গুলোকে প্রোডাক্ট এর সাথে সাথে উপস্থাপন করুন । আপনার কোম্পানি কি ধরণের প্রোডাক্ট বিক্রি করে এর সাথে পরিচয় করিয়ে দিন প্রোডাক্ট এর সাথে সাথে । তাহলে মানুষ আপনার প্রোডাক্ট , আপনার কোম্পানি এবং আপনার ব্র্যান্ড সম্পর্কে অবগত হবেন ।

৭ । প্রচারঃ ভালোভাবে এডিট ও পোস্ট প্রোডাকশন সম্পূর্ণ করে ভিডিও ইউটিউবে আপলোড করুন । তারপর সেই ভিডিও সামাজিক বিভিন্ন সাইট যেমন ফেসবুক , টুইটারসহ যাবতীয় সব মাধ্যমে বিভিন্ন গ্রুপ ও কোম্পানির পেজ থেকে শেয়ার করুন । আপনার কোম্পানির একটি ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করে ফেলুন । সেখান থেকে নিয়মিতভাবে বিভিন্ন উৎসব-পার্বণে বিভিন্ন প্রোডাক্ট এর ভিডিও রিলিজ দেন । এছাড়া আপনার ই- কমার্স সাইট থেকে রোটেট মেশিন এর সহযোগিতায় শুধুমাত্র প্রোডাক্ট ভিডিও তৈরি করে আপনার সাইটে আপলোড করতে পারেন আর্কস্পিন এর সহযোগিতায় কিংবা আপনার সাইটে এমন ব্যবস্থা রাখুন যেখানে প্রতিটা পণ্যে ক্লিক দেয়ার পরে সেই প্রোডাক্ট এর রোটেট মেশিন এর ওপর প্রোডাক্ট রাখা একটা ভিডিও থাকবে। যা মাউস দিয়ে ক্রেতা বিভিন্ন ভাবে প্রোডাক্ট ঘুরিয়ে আপনার সাইট থেকেই দেখতে পারবে ।

rotate

…………………………………………

সবাই ভালো থাকবেন
শুভেচ্ছা

Content Writer- Nazmul Hasan Majumder

For Facebook profile click here

For Facebook Page – contentever 

2,637 total views, 3 views today

Comments

comments

You are not authorized to see this part
Please, insert a valid App IDotherwise your plugin won't work.

Your email address will not be published.